কুয়াকাটায় নতুন বছর বরণের জন্য প্রস্তুত

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা প্রতিনিধি:
থার্টি ফাস্ট নাইট উদযাপনের জন্য প্রস্তুত সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটা। নতুন বছর বরণে কুয়াকাটায় আগমন ঘটে দেশ-বিদেশ থেকে লাখো পর্যটকের, তারই ধারাবাহিকতায় এবার সাজানো হয়েছে হোটেল-মোটেল সহ পর্যটন স্পটগুলো। এর মধ্যেই অধিকাংশ হোটেলের রুম বুকিং হয়ে গেছে। নতুন বছরের শেষ দুই দিন শুক্রবার,শনিবার থাকায় প্রতি বারের তুলনায় এবার পর্যটকদের উপস্থিতি থাকবে দ্বিগুন। নতুন বছরকে পর্যটকের সাথে আনন্দ মুখর পরিবেশ বিরাজ করার জন্য প্রস্তুত কুয়াকাটা পর্যটন ব্যবসায় সংশ্লিষ্টরা, সকলের ধারণা এই নতুন বছরে লাখো পর্যটকের আগমন ঘটবে সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায়,পিছনের ক্ষতি পুষিয়ে লাভের আশা করছেন তারা।

বাংলাদেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র সমুদ্র কন্যা কুয়াকাটা, একই স্থানে দাঁড়িয়ে সূর্য উদয় ও সূর্য অস্ত দেখা যায় সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটার বেলাভূমি থেকে, পর্যটকদের মিলন মেলায় মুখরিত থাকবে ১৮ কিলোমিটার সমুদ্র সৈকত, পর্যটকের অবিরাম ছুটে চলা লাল কাকড়া , শুটকি পল্লী, লেবুর বন, ঝাউবন, ঝিনুক চর, তিন নদীর মোহনা, মিশ্রিপাড়া বৌদ্ধ মন্দির, কুয়াকাটার কুয়া, গঙ্গামতির লেক। সমুদ্রপথে আনন্দে মেতে উঠবে, চর বিজয়, ফাতরার বন, ফকিরহাট, সোনাকাটা। সমুদ্রের ঢেউয়ের সাথে, ওয়াটার বাস, স্পিড বোর্ড, উপভোগ করবে জেলেদের মাছ ধরার। ব্যস্ত সময় পার করবে মোটরবাইক চালক, ইজিবাইক, অটোরিকশা, ফটোগ্রাফার, ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। পর্যটকদের আনন্দ উল্লাসে থাকবে ইলিশ পার্ক,নির্জন পিকনিক স্পট সব মিলে পর্যটকদের নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করবে পর্যটন ব্যবসায়ীরা এমনই আশা করছেন তারা। পর্যটকদের নিরাপত্তা প্রস্তুত থাকবেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

হোটেল সাউথ বীচ রিসোর্টের পরিচালক মোঃ রাসেল বলেন, ২০২২ সালকে বিদায় জানিয়ে ২০২৩ সাল ও নতুন বছরকে বরণ করতে ও পর্যটকদের জন্য সেবায় নতুন মাত্রা যুক্ত করছে সাউথ বীচ রিসোর্ট ৷ এছাড়াও নতুন সাজে সাজিয়ে নিয়েছে, হোটেল আল বেলাল আবাসিক, হোটেল সমুদ্র বিলাস,নির্জন পিকনিক স্পট ।

কুয়াকাটা ফটোগ্রাফার সমিতির সভাপতি, মোঃ আল-আমিন কাজী বলেন, নতুন বছরে পর্যটকদের আনাগোনায় আনন্দমুখর থাকবে আমাদের সমুদ্র সৈকত, ব্যস্ত সময় পার করবে ফটোগ্রাফার। তবে পর্যটকের জন্য আমাদের সর্বোচ্চ সেবা থাকবে, প্রতিবছর আমাদের নামে যে অভিযোগগুলো আসছে আশা করছি এখন থেকে পর্যটকদের কোন অভিযোগ থাকবে না আমাদের প্রতি। কারণ হিসাবে তিনি জানালেন আমরা বাছাইকৃত ফটোগ্রাফার দিয়েই পর্যটকদের সেবা দিয়ে থাকব। তিনি আরো বলেন, নতুন বছরে আমি নিজে সর্বক্ষণিক সমুদ্র সৈকতে থেকে পর্যটকদের সেবা সম্পন্ন করব এবং বাছাই কৃত ফটোগ্রাফারদের নজরে রাখবে ৷

কুয়াকাটা শুভ সংঘ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো: রুবেল বেপারী বলেন, আমরা প্রতিবছর পর্যটকদের নিয়ে মোমবাতি জ্বালিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানাই, এবং পর্যটকদের আনন্দ দেওয়ার জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করি, তারই ধারাবাহিকতায় সভাপতির নির্দেশ এবারও এই উদযাপন হবে।

কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠী “র সভাপতি হোসাইন আমির জানান, সুন্দরের লীলাভূমি সমুদ্র কন্যা কুয়াকাটা, আনন্দ বিনোদন দেয়ার একমাত্র প্রতিষ্ঠান কুয়াকাটা শিল্পী গোষ্ঠী, ইতিমধ্যেই অনেকে আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছে, আমার ধারণা নতুন বছরের প্রথম দিনই লাখো পর্যটকের উপস্থিতি থাকবে কুয়াকাটায়।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন কুয়াকাটা (টোয়াক) সভাপতি রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন, অসংখ্য পর্যটক টোয়াক অফিসে কুয়াকাটা সম্পর্কে জানতে ও সহযোগিতা নিতে যোগাযোগ করছেন, অধিকাংশ পর্যটক নতুন যারা এই প্রথম কুয়াকাটায় ভ্রমণে আসছেন, আমার ধারণা এবার নতুন বছরে প্রচুর পরিমাণ পর্যটকের আগমন ঘটবে সমুদ্র কন্যায়, পর্যটকদের সেবায় প্রস্তুত থাকবেন টোয়াক পরিবার।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের সহকারী পুলিশ সুপার মো: আব্দুল খালেক, বলেন,পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ দর্শনীয় স্থানে ট্যুরিস্ট পুলিশ সদস্যদের টহল অব্যাহত রয়েছে। মোবাইল টিম ও রেসকিউ টিমও কাজ করবে। নতুন বছরকে নতুন রূপ দেওয়ার লক্ষ্যে, কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশ সার্বক্ষণিক পর্যটকদের সেবায় নিয়োজিত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *