বাগেরহাট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত

শেখ সোহেল,বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি:
বাগেরহাট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও জেলা সেচ্ছাসেবকদলের সাধারন সম্পাদক নুরে আলম তানু ভুঁইয়াকে (৩৭) গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ দাবি করছে, তানু এলাকায় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, প্রতিপক্ষের গুলিতে তিনি নিহত হন। শুক্রবার রাত সোয়া ৯টার দিকে বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি পদ্মপুকুরের মোড় এলাকায় গোলাগুলিতে নিহত হন তানু ভুঁইয়া। পরে আমরা উদ্ধার করে তাকে বাগেরহাট ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নুরে আলম তানু ভূঁইয়া বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি এলাকার মৃত আব্দুর রউফ ভুইয়ার ছেলে। সংগঠনের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২১ সালের ১৪ নভেম্বর স্বেচ্ছাসেবক দল বাগেরহাট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম ভূইয়া তানুকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। কিন্তু একই এলাকার টুটুল শেখের ছেলে ফরিদের গুলিতে তানু নিহত হয় বলে জানান পুলিশ।তানু ভুঁইয়ার বড় ভাই আবুল কাশেম সেলিম ভুইয়া জানান যে,আমার ভাইকে ওরা গুলি করে মেরে ফেলেছে।

তানু ভুঁইয়ার বোন লোপা বলেন যে,রাত ৯টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে বগা ক্লিনিকের দিকে যায় আমার ভাই । কিছুক্ষণ পরেই পরপর চারটা গুলির শব্দ পাই। দ্রুততার সাথে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকেরা ভাইকে মৃত ঘোষণা করে। আমাদের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে আমার দাবি।

বাগেরহাট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এমএ সালাম বলেন, ‘তানু ভূঁইয়া স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক। আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অনেক তার । তাই পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এ ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও দ্রুততার সাথে গ্রেপ্তার করার ব্যবস্থা দাবি
জানাচ্ছি।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের গণমাধ্যম শাখার সমন্বয়ক পরিদর্শক এসএম আশরাফুল আলম বলেন যে, তানু ভূঁইয়া নামের এক ব্যক্তি ফরিদ নামের এক ব্যক্তির গুলিতে নিহত হয়। তানু ভুইয়া বিএনপি নেতা এবং চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী । তাঁর নামে মাদক, বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে আটটি মামলা ও রয়েছে।

তাছাড়া ও ফরিদের নামে হত্যাসহ বিভিন্ন অপরাধে পাঁচটি মামলা রয়েছে। অভিযুক্ত ফরিদকে ধরতে পুলিশের একাধিক দল কাজ করে যাচ্ছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *