মাছ ধরা নিষেধ, এই ফাঁকা সময়কে কাজে লাগাচ্ছে জেলেরা

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ,কুয়াকাটা প্রতিনিধি:
পটুয়াখালী কুয়াকাটার জেলে পল্লী গুলোতে মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন, এই সময়কে কাজে লাগিয়ে নিচ্ছে এই অঞ্চলের জেলেরা, ব্যস্ততার সময় কাটাচ্ছে তারা। কেউ নতুন জাল বুনছেন। আবার অনেকে পুরনো জাল ঠিকঠাক করে নিচ্ছেন। কেউবা চেক করে নিচ্ছেন জালে কোনো ত্রুটি আছে কি না।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আলিপুর মহিপুর মৎস্য বন্দরগুলোতে জেলেরা প্রতিযোগিতা দিয়ে নতুন জাল পালা তৈরি করছে। কেউ বা ট্রলার মেরামত করছে। এই নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পরে নতুন ট্রলার নিয়ে গভীর সমুদ্রে যাবে মাছ ধরতে, এমন আনন্দ এই অঞ্চলের জেলেদের।

০৭ অক্টোবর ২০২২ থেকে ২৮ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত মোট ২২ দিন বাংলাদেশে দেশে ইলিশ আহরণ বন্ধ থাকবে। এ সময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, বিপণন, ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহণ, মজুদ ও বিনিময় নিষিদ্ধ থাকবে। এমন তথ্য জানিয়েছিলো মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। এরপর থেকেই মাছ ধরা বন্ধ করে দেয় জেলেরা। তবে প্রতিবারের তুলনায় এবারে অবরোধ আলাদাভাবে উপভোগ করছেন, কারণ নিষেধাজ্ঞা মেনে কিনারায় আসার পথে জেলেরা মন কে মন মাছ পেয়েছে । এবং নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে প্রচুর পরিমাণ মাছ হবে বলে ধারণা তাদের। তাই আরাম আয়েশ বাদ দিয়ে অনেক মাছ ধরার স্বপ্ন বুকে নিয়ে জাল বুনেছে।

কুয়াকাটার জেলেরা বলেন, এই অবরোধের সময় আমরা জেলেরা একটু আরাম আয়েশ করি। কিন্তু এবারে অবরোধ টি অন্যভাবে উপভোগ করতে হচ্ছে, কারণ এই সুযোগটা আমরা কাজে লাগিয়ে মাছ ধরার সকল সরঞ্জাম গুছিয়ে নিচ্ছে।

মহিপুর, আলিপুরের জেলে জানান, আমরা ধারণা করছি নিষেধাজ্ঞ উঠে গেলে সমুদ্র থেকে অনেক মাছ ধরতে পারবো। কারণ প্রচুর পরিমাণ মাছ থাকা কালীন এবার অবরোধ হয়েছে।

কলাপাড়ার মৎস্য কর্মকর্তা জানালেন, আমরা জেলেদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা পাচ্ছি, আমরাও চেষ্টা করছি মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা সুন্দরভাবে শেষ করতে। আমরা ধারণা করছি অবরোধ উঠে গেলে জেলেদের জালে ধরা পড়বে নানা প্রজাতির মাছ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *