যোগদানের ১৬ কর্ম দিবসের মাথায় শরীয়তপুর এডিসি(রাজস্ব) স্ট্যান্ড বদলি

মোঃ মিজানুর রহমান পাহাড়, শরীয়তপুর জেলা প্রতিনিধি:
যোগদানের ২৬ দিন(১৬ কর্ম দিবস) পার না হতেই শরীয়তপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ইকবাল হোসেনের বদলী, বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে পদ্মা সেতু(এপ্রোচ) সড়ক এবং চাদপুর মহাসড়কের ভূমি অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্ত সেবা গ্রহীতাগণ এ মানববন্ধন করেন।

মানববন্ধনে সেবা পাওয়া ব‍্যক্তিরা বলেন, আমরা একজন সৎ কর্মকর্তাকে পেয়েছি। তাকে আমরা হারাতে চাই না। তিনি আসার পরে আমরা সরাসরি কথা বলতে পেরেছি এবং গত ২-৩ বছরে যে সেবা আমরা পাইনি, এ কর্মকর্তা আমাদের সহজে সে সেবা দিয়েছেন। তিনি বিনা হয়রানিতে আমাদের সেবা দিয়ে আসছেন। যার কারনে আমরা ইতিমধ্যে উনার মাধ্যমে এ পর্যন্ত ১২০ জন চেক পেয়েছি। সে থাকলে আমরা হয়রানিমুক্তভাবে সেবা পাবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট এ কর্মকর্তার বদলী বাতিলের দাবিতে আবেদন করছি। তারা বলেন, বিনা হয়রানিতে ২৪ দিনে ১২০ জনকে চেক প্রদান করেছেন এ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) ইকবাল হোসেন এটাই তার বদলীর কারন হতে পারে!

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জিজ্ঞাসাবাদে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) ইকবাল হোসেন বলেন, যারা সড়কে ভূমি হারিয়েছেন, তারা অসহায় ও নি:স্ব। তারা যত দ্রুত ভূমি অধিগ্রহণের চেক পেতে পারে, এ কাজটিই আমি করেছি। আমাকে হঠাৎ করে বদলী কথা বলা হলো, এর জন‍্য এখনো আমি প্রস্তুত নই। কারন, আমি গত ৪ আগষ্ট অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) হিসেবে যোগদান করেছি। এখনো বেতন পাইনি। এ মাসে চলতে ১৫’হাজার টাকা ঋন নিয়েছি। অথচ আমাকে না জানিয়ে ঢাকা বদলী করা হয়েছে। ঢাকা বাসা ভাড়া দিয়ে থাকার সামর্থ আমার নেই। বেতন দিয়ে বাড়িতে খরচ চালিয়ে এমনিতেই অনেক কষ্ট হয়, ঢাকা বাসা ভাড়া দিয়ে থাকা আমার অসম্ভব। আমি কি করবো এখনো বুঝে ওঠতে পারছি না, চাকরি ছেড়ে বাড়িতে যাব, না চাকরি করবো!

সবশেষে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, যারা এসব ভূমি অধিগ্রহণ করতে গিয়ে ১০-১৫% কেটে রেখে দেয়, এদের কঠোর বিচার হওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *