আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ প্রতিযোগিতায় ইবির সাফল্য

ইবি প্রতিনিধি:
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ কর্তৃক আয়োজিত দুই দিনব্যাপী কনফারেন্সে অংশগ্রহণ করে অভূতপূর্ব সাফল্য পেয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীরা।

গত শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সমাপনী অধিবেশনের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘ ২০২২ এর প্রতিযোগিতা। এতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও আয়োজক খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করেন।

দুইদিনব্যাপী ছায়া জাতিসংঘ কনফারেন্সে ইউনাইটেড ন্যাশনস সিকিউরিটি কাউন্সিল, ইউনাইটেড ন্যাশনস হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল, আরব লীগ এবং ইনটারন্যাশনাল প্রেস এই চারটি কমিটি ছিলো।

এদিকে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিভিন্ন বিভাগ থেকে প্রতিযোগী হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ২৮ জন শিক্ষার্থী।
পাশাপাশি বিচারক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘের সভাপতি রাসেল মুরাদ। ছায়া সংসদে ২৮ জন প্রতিযোগির মধ্যে ১৫ জন পুরস্কার অর্জন করেন যা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বড় একটা অর্জন বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

অন্যান পুরস্কৃতদের মধ্যে রয়েছেন ইউনাইটেড ন্যাশনস সিকিউরিটি কাউন্সিলের অধীনে বেস্ট ডেলিগেশন পুরস্কার অর্জন করেন মোট চারজন। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের আনিছুর রহমান সাইমন, আউটস্ট্যান্ডিং ডেলিগেশন পুরস্কার পেয়েছেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের আল ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের আনারুল ইসলাম, স্পেশাল মেনশন ১ পেয়েছেন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ব্যবস্থাপনা বিভাগের জুবায়ের আহমেদ ভুইঞা এবং স্পেশাল মেনশন ২ পেয়েছেন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের অর্থনীতি বিভাগের নাহিদ হাসান।

ইউনাইটেড ন্যাশনস হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলের অধীনে পুরস্কার অর্জন করেন মোট সাতজন। আউটস্ট্যান্ডিং ডেলিগেশন পুরস্কার অর্জন করেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার বিভাগের কাজি সুরাইয়া ইভা, স্পেশাল মেনশন ১ অর্জন করেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের লামিয়া হোসাইন এবং স্পেশাল মেনশন ২ অর্জন করেন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ট্যুরিজম অ্যান্ড হস্পিটালিটি বিভাগের আরশি আখি।
ভারবাল মেনশন ১ অর্জন করেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের আবু জুহাইফা আবির, ভারবাল মেনশন ২ অর্জন করেন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ট্যুরিজম অ্যান্ড হস্পিটালিটি বিভাগের ফেরদৌস আহমেদ প্রান্ত, ভারবাল মেনশন ৩ অর্জন করেন ২০৯-২০ শিক্ষাবর্ষের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের আশফাকুর রহমান শাফিন এবং ভারবাল মেনশন ৪ অর্জন করেন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি বিভাগের নাজমুস সাকিব জিতু।

আরব লীগের অধীনে পুরস্কার অর্জন করেন মোট চারজন। বেস্ট ডেলিগেশন পুরস্কার অর্জন করে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ব্যবস্থাপনা বিভাগের আব্দুল্লাহ আল মামুন, আউটস্ট্যান্ডিং ডেলিগেশন পুরস্কার অর্জন করেন ২০১৯-২৯ শিক্ষাবর্ষের অর্থনীতি বিভাগের নাজমুস সাকিব।
ভারবাল মেনশন ১ অর্জন করেন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ট্যুরিজম অ্যান্ড হস্পিটালিটি বিভাগের জিলান খন্দকার এবং স্পেশাল মেনশন ২ অর্জন করেন ব্যবস্থাপনা বিভাগের অমিত কামাল।
ইন্টারন্যাশনাল প্রেসের অধীনে স্পেশাল মেনশন পুরস্কার অর্জন করেন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের উন্নয়ন অধ্যায় বিভাগের মৃত্যিকা খান।

বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘের সভাপতি রাসেল মুরাদ বলেন, ছায়া জাতিসংঘ হচ্ছে এমন একটা প্লাটফর্ম যেখানে শিক্ষার্থীরা নিজেদের সফট স্কিল ডেভেলপ করতে পারবে। কিভাবে নেগোসিয়েশন করতে হয়, কিভাবে প্রেজেন্টেশন দিতে হয়, কিভাবে কমিউনিকেশন করতে হয়, কিভাবে লবিং করতে হয়। ইন্টারন্যাশনাল বিষয়গুলো সম্পর্কে অবগত হওয়ার পাশাপাশি ডিপ্লোমেটিক বিহেভিয়ার সম্পর্কে অবগত হতে পারে সর্বোপরি আমাদের সেশনগুলো ইংরেজিতে হয় সেই ক্ষেত্রে ইংরেজিতেও পারদর্শী হওয়া যায়। আমি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছায়া জাতিসংঘের অধীনে আনার চেষ্টা করছি এবং আগামী মাসে আমরাও একটা ছায়া জাতিসংঘ কনফারেন্সের আয়োজন করতে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ। বিশেষ করে প্রশাসন, ইলক্ট্রনিক এবং প্রিন্ট মিডিয়া সর্বোপরি সকলের সহযোগিতা এবং পরামর্শ একান্ত কাম্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *