শরীয়তপুরে সৎ মাকে হত্যাকারী তিন ঘাতক গ্রেফতার

মোঃ মিজানুর রহমান পাহাড়, শরীয়তপুর জেলা প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সুখিপুরে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী ও সৎ ছেলের হাতে নুজাহান বেগম (৫০) নামে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর থেকে স্বামী ও সৎ ছেলেরা পলাতক ছিল। আজ (২২/৭/২২) ঘাতক তিন ছেলেকে গ্রেফতার করেছে সখিপুর থানা পুলিশ।

গত ৬জুন ২০২২ সকালে উপজেলার সখিপুর থানার সখিপুর ইউনিয়নে নইমউদ্দিন সরদার কান্দি গ্রামের নিজ ঘর থেকে লাশ উদ্ধার করে সখিপুর থানা পুলিশ।

পরিবার সুত্রে জানা যায়, ফজলুর বেপারী দীর্ষদিন প্রথম স্ত্রীকে রেখে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে কাচিকাটায় ইউনিয়নে দীর্ঘ দিন বসবাস করেন। গত কয়েকদিন আগে কাচিকাটার ঘরবাড়ি ভেঙ্গে সখিপুরে চলে আসেন। এ অবস্থায় পরের স্ত্রীর ছেলেরা দুজন তার মা এবং সৎ মায়ের সঙ্গে একই বাড়িতে বসবাস করছিল। কিন্তু সৎ মা প্রায়ই নুরজাহানকে তার ছেলে মেয়ের বিষয়ে কটূক্তি করতো। তার পর থেকেই পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। গত (৬জুন) রাতে ফজলুর বেপারী ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী মোকশেদা সহ দ্বিতীয় ঘরের ছেলে শাওন বেপারী(২১) সাগর বেপারী (২৪)ও বিল্লাল বেপারী (১৮) পরিকল্পিত ভাবে দেশী অস্ত্র নিয়ে এসে ফজলুল বেপারী তার প্রথম স্ত্রীকে ঘর থেকে বের হয়ে যেতে বলার কারনে কেন্দ্র করে সৎ মায়ের সঙ্গে ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত হয়ে একপর্যায় ছেলে ও মেয়ের সামনে মোকশেদা ও তার দুই ছেলে মিলে নুরজাহানকে এলোপাথাড়ি কুপায় ও পায়ের রগ কেটে ফেলে। এতে নুরজাহান বেগম রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে স্থানীয়রা পুলিশকে সংবাদ দিলে। পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।এর পর থেকেই পালিয়ে থাকে নুরজাহন বেগম এর খুনিরা।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মামুন বেপারি বাদী হয়ে ৮জন কে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ০৩

এবিষয়ে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান আসাদ হাওলাদার গণমাধ্যমকে জানান, গত (০৬ জুন) সখিপুর থানার নইমুদ্দিন সরদার কান্দি একটি হত্যার ঘটনা ঘটে স্বামী ও সৎ ছেলেদের হাতে প্রথম স্ত্রী খুন, এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মামুন বেপারি বাদী হয়ে ০৬/০৬ /২০২২ইং ০৮ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ০৩ স্মারক নং ১৪৯০(৩)/১
এবং আজ (২২ জুলাই) সখিপুর থানা পুলিশ এস আই মিরাজ ও সংগীয় ফোর্সসহ ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করিয়া হত্যা মামলার প্রধান তিন আসামী ১/ শাওন বেপারী(২১), ২/ সাগর বেপারী(২৪) ও ৩/ বিল্লাল বেপারী, উভয় পিতা, ফজলুল হক বেপারী, আসামীদেরকে গ্রেফতার করিতে সক্ষম হয় এবং প্রাথমিক জিগ্যাসাবাদে আসামীরা হত্যায় জরিত থাকার কথা শিকার করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *