কুড়িগ্রাম ভাইয়ের হাতে বোনের সামীকে খুনের অভিযোগ

ভুরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের ঈশ্বরবরুয়া একাব্বর মোড় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আঃ জব্বার (৫০), উপজেলার একই ইউনিয়নের মৃত মোজাফফর হোসেনের পুত্র । । আজ ২২/০৭/২০২২ইং রোজ শুক্রবার সকালে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

স্থানিয় সূত্রে জানা গেছে নিহত আঃ জব্বার প্রায় ১৭ বছর যাবৎ সে শশুর বড়িতে জায়গা নিয়ে বসবাস করতেছে। তার এক কন্যা, এক পুত্র সন্তান আছে।

গতকাল (বৃহস্পতিবার ) রাতে একাব্বর মোড় এলাকার দরদী চা স্টলের সামনে নিহতের শুমন্দী মমতাজে সাথে নিহত আব্দুর জব্বার এর সাথে বাকদ্বন্দ হয়ে তার শুমন্দী তাকে পারপিট করে জখম করলে সে গুরুতর আহত হয়ে অসুস্থ হয়ে পরে।
পরে তার স্ত্রী হাসিনা বেগম স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে বাড়িতে নিয়ে মাথায় পানি দেয় এবং ঘড়োয়া চিকিৎসা করে। পরে অবস্থার অবগতি হইলে পরিবারের লোকজন রাত দেরটার দিকে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
পরে চিকিৎসারত অবস্থায় আজ ২২ জুলাই শুক্রবার সকাল ১১:৩০ ঘটিকায় সে মৃত্যুর বরন করে।

এ বিষয়ে নিহতের মেয়ে সাথি যানায় আমার বাবাকে আমার মামা মমতাজ গতরাতে অনেক মারপিট করেছে সেই কারনেই আমার বাবা মারাগেছে।

নিহতের ছোট ভাই সুবহান আলী বলেন, আজ সকালে মোবাইলে আমি জানতে পারি আমার ভাইকে মমতাজ অনেক পারপিট করেছে সে হাসপাতালে ভর্তি আছে। আমি তাকে দেখার জন্যে রওনাদিলে পথিমধ‍্যে শুনতে পাই সে মারাগেছে। আমি আমার ভাইয়ের খুনির সঠিক বিচার দাবি করতেছি।

ভুরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক আর এম ও রাজু বলেন, গতরাতে ১:৩০ আঃ জব্বার কে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসে। আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা করার পর তার জ্ঞান না ফিরলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে অন‍্য হাসপাতালে রেফার্ড করলে তারা সেখানে নিয়ে যায়নি। পরে আজ সকালে ১১:৩০ ঘটিকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য এম্বুলেন্স এ উঠানোর অবস্থায় অবস্থা আসংকজনক মনে হিলে আবারও ভূরুঙ্গামারী উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে ডাক্তার সাহাদুজ্জামান চিকিৎসা অবস্থায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ভুরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন বলেন এ বিষয়ে এখনো কোনো থানায় অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে ব‍্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *