৫ শতাধিক বন্যার্ত পরিবারকে সহায়তা দিয়ে ফিরল পবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

আবু হাসনাত তুহিন, পবিপ্রবি প্রতিনিধি:
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেট ও সুনামগঞ্জের প্রায় পাঁচ’শ পরিবারের মাঝে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করেছে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। তারা সিলেট এবং সুনামগঞ্জের প্রত্যন্ত হাওর অঞ্চলের মানুষের মাঝে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেয়।

রোববার (২৬ জুলাই) এ কার্যক্রম শেষ হয়েছে বলে জানান পবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা। এ কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন পবিপ্রবির ভাষা ও যোগাযোগ বিভাগের অধ্যাপক মো. মেহেদী হাসান।

সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াতে পটুয়াখালী থেকে সিলেটে যান পবিপ্রবি শিক্ষার্থী তানজিদ হাসান জিসান, আবদুল্লাহ আল মৃদুল, এহসান কবির জিম, নবীন কুমার সরকার (সৃজন), খাইরুল ইসলাম ও তৌহিদুল রহমান শাওন।

সিলেটের বন্যার্তদের মুখে হাসি ফোটাতে পবিপ্রবির শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং শিক্ষার্থীদের থেকে অর্থ সংগ্রহ করে শাবি শিক্ষার্থীদের সহায়তায় সিলেট থেকে ত্রাণসামগ্রী কেনেন পবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা। এরপর তাদেরই সহায়তায় তা বন্যার্তদের হাতে পৌঁছে দেন তারা।

শিক্ষার্থীরা জানান, সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের জন্য আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং শিক্ষার্থীদের প্রদান করা ফান্ড সংগ্রহ করি। সব মিলিয়ে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪৯১ টাকা সংগ্রহ করা হয়। আর এসব অর্থ দিয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, বালুচর, খাসপাড়ার প্রায় পাঁচশ পরিবারের মাঝে খাদ্য ও গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র বিতরণ করা হয়।

প্রতিটি বন্যার্ত পরিবারকে ৪ কেজি চাল, আধা কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, আধা কেজি পেঁয়াজ, সরিষার তেল, স্যানিটারি ন্যাপকিন আর ওষুধ দেয়া হয় বলে জানান তারা।

অধ্যাপক মেহেদী হাসান বলেন, মানুষের এ দুঃসময়ে পাশে দাঁড়ানো এটা আমাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লাখ লাখ মানুষের পাশে না থাকতে পারলেও আমাদের সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছি। এর জন্য শিক্ষার্থীরা অনেক কষ্ট করেছে। তারা সূদুর পটুয়াখালী থেকে ফান্ড জোগাড় করে সিলেটে এসে বৃষ্টিতে ভিজে সারাদিন অনেক পরিশ্রম করে বন্যার্তদের মাঝে এসব উপকরণ পৌঁছে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.