পবিপ্রবিতে হলের মূল সড়ক সংস্কার ও রোড লাইট স্থাপনের জন্য স্মারকলিপি প্রদান

আবু হাসনাত তুহিন, পবিপ্রবি প্রতিনিধি:
পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) সৃজনী বিদ্যানিকেতন থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ও এম. কেরামত আলী হলের মূল সড়ক সংস্কার ও রোড লাইটের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আবেদন করে রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে ভিসি বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার(২১ জুন) বিকেল ৫ টায় দুই হলের শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দল স্মারকলিপিটি স্বহস্তে বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) ড. কামরুল ইসলাম এর নিকট জমা দেন।

স্মারকলিপিতে শিক্ষার্থীরা উল্লেখ করেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও এম. কেরামত আলী হলের। সৃজনী ব্রীজ থেকে এম. কেরামত আলী হলের মূল সড়ক অনেক বছর ধরে অবহেলিত অবস্থায় পড়ে থাকায়, বিশেষ করে বর্ষার সময় শিক্ষার্থীরা নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে সমস্যায় পড়ে। এমনকি বিভিন্ন দুর্ঘটনারও শিকার হতে হয়। তাই শিক্ষার্থীরা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আগামী এক মাসের মধ্যে সকল প্রক্রিয়া শেষ করে সড়ক সংস্কার ও পর্যাপ্ত রোড লাইটের ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী মহসিন বলেন, রাস্তার অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। দ্রুত সংস্করণ না হলে যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনার শিকার হতে হবে। এছাড়া বৃষ্টি হলে ক্লাস কিংবা পরীক্ষা দিতে আসার সময় শিক্ষার্থীদের পোশাক অপরিষ্কার হয়ে যায়। যা খুবই বিব্রতকর।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী সাইফ বলেন,রাস্তার জন্য আমরা চরম দুর্ভোগের মধ্যে আছি।যানবাহনে যাওয়া তো দূরের হেটে যাওয়াও কষ্টকর হয়ে গেছে।

পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অনুষদের ১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী অমিত বলেন,রাস্তায় সমস্যার জন্য সময়মতো ক্লাস, পরীক্ষায় অংশ নেওয়া কঠিন হয়ে যায়।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী শাওন বলেন,বৃষ্টির দিনে সন্ধ্যার পর চলাচল প্রায় অসম্ভব বলা যায়। একদিকে রাস্তার বেহাল অবস্থা, নেই পর্যাপ্ত বৈদ্যুতিক বাতির ব্যবস্থা।

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ড. কামরুল ইসলাম বলেন,আমি তোমাদের দাবির সাথে একমত পোষণ করছি এবং যত দ্রুত সম্ভব হয় সংস্করণ কাজ শুরু করার আশ্বাস দিচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.