সোনাইমুড়ীতে জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত

খোরশেদ আলম শিকদার, সোনাইমুড়ী, নোয়াখালী:
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর ৪১তম শাহাদাৎ বার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং নোয়াখালী ১ সোনাইমুড়ী-চাটখিল আসনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী মামুনুর রশীদ এর সমর্থনে সোনাইমুড়ী উপজেলা বিএনপি, পৌর বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে দোয়া মাহফিল শেষে দুস্হদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

সোমবার (৩০মে) বিকেল ৫টার দিকে সোনাইমুড়ী ফয়েজিয়া এতিমখানা মাদ্রাসা মিলনায়তনে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক আলা উদ্দিন রাজুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন সোনাইমুড়ী পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ লোকমান, পৌর যুবদলের আহবায়ক মারুফুর রহমান, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী দেলোয়ার হোসেন পিন্টু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির আহবায়ক পদপ্রার্থী এডভোকেট তুহিন চৌধুরী, উপজেলা কৃষক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক জানে আলম সোহেল ভুঁইয়া, উপজেলা যুবদলের ১নং যুগ্ম আহবায়ক আওলাদ হোসেন হেলাল, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক ইকবাল হোসেন ভুঁইয়া, যুগ্ম আহবায়ক মিলন হোসেন, পৌর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক সাহাব উদ্দিন সাপু, যুগ্ম আহবায়ক কামাল হোসেন, পৌর শ্রমিক দলের আহবায়ক পদপ্রার্থী ইসমাইল হোসেন ভুঁইয়া, পৌর বিএনপি নেতা লাতু ভুঁইয়া, পৌর বিএনপি নেতা জাকির হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক মোঃ মোরশেদ আলম, উপজেলা ছাত্রদলের ১নং যুগ্ম আহবায়ক মোঃ মাইনুল হাসানসহ উপজেলা, পৌর বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের অসংখ্য নেতা কর্মী। আলোচনা শেষে জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও বিএনপির চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া শেষে দুস্হদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

অপরদিকে উপজেলা ছাত্রদলের পুর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বিকেলে সোনাইমুড়ী বাজারে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে ছাত্রদল। মিছিলটি বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে রেল স্টেশন মোড়ে এসে পৌঁছতেই ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়। এ সময় ছাত্রদলের ৩/৪জন নেতাকর্মী আহত হয় বলে জানিয়েছেন ছাত্রদল নেতারা। নেতৃবৃন্দ বলেন, হামলার শিকার ছাত্রদল নেতা কর্মীরা ফয়েজিয়া মাদ্রাসায় আশ্রয় নিলে সেখানে তাদের অবরুদ্ধ করে রাখে। সন্ধ্যার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে তারা বের হয়ে নিজ নিজ গন্তব্যে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.