শ্রীপুরে শিল্প প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ

গাজীপুর প্রতিনিধি:
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ২নং গাজীপুর ইউনিয়নের গাজীপুর গ্রামে শিল্প স্থাপনে সীমানাপ্রাচীর ভাংচোর এবং কাজে বাধাদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সীমানা প্রাচীর ভাংচুর, হামলা ও জমি জবরদখল চেষ্টাসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এর আগেও চাঁদা দাবীর অভিযোগে একটি মামলাও গাজীপুর আদালতে চলমান রয়েছে।

এক্সিকিউটিভ বেক ফেব্রিক্স প্রাইভেট লিমিটেডের পক্ষে ল্যান্ড অফিসার আব্দুস সাত্তার গাজীপুর আদালত ও নিরাপত্তা কর্মকর্তা হাকিনুর রহমান কর্তৃক শ্রীপুর থানায় পৃথক ঘটনায় দুটি অভিযোগ করেছেন।

এসব ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের কপাটিয়াপাড়া গ্রামের সরাফত, সিরাজুল ইসলাম, মফিজ উদ্দিন, ফজলুল হক , মোস্তফা, খোরশেদ, মাসুদ রানাসহ অজ্ঞাত কমপক্ষে ৫ জন।

প্রাপ্ত অভিযোগ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত প্রায় দেড় যুগ আগে এক্সিকিউটিভ বেক ফেব্রিক্স প্রাইভেট লিমিটেড কর্তৃপক্ষ ৫০ একর জায়গা ক্রয় করেন। সেখানে শিল্প স্থাপনে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে নানা কাজের উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

গত শনিবার (২৮ মে) বেলা ১১টায় অভিযুক্তরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রকল্প এলাকার দক্ষিণ-পূর্ব পাশের সীমানা প্রাচীরের অংশ বিশেষ ভাংচুর করে। প্রকল্পের কর্মীদের ডাকচিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাজমুল হাসান জানান, থানায় এ সংক্রান্ত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়ে তিনি বিষয়টি তদন্ত করছেন।

অপরদিকে, গত ১০ ফেব্রুয়ারী অভিযুক্তরা দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে প্রকল্পের সীমানা প্রাচীরে প্রবেশ করে কর্তৃপক্ষের কাছে চাঁদা দাবী করেন। পরে এ ঘটনায় ১৩ ফেব্রুয়ারী গাজীপুর আদালতে একটি মামলা রুজু হয়। আদালত ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য গাজীপুর জেলা গোয়েন্দা বিভাগকে দায়িত্ব দেন।

এক্সিকিউটিভ বেক ফেব্রিক্স প্রাইভেট লিমিটেডের তত্বাবধায়ক কবির তালুকদার জানান, গত ১৬ বছর আগে স্থানীয় ভূমী অপিস থেকে এই জায়গার নামজারী ও জমাভাগ পরিশোধ করে করাখানার সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সিরাজুল ইসলামের সােেথ যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। এসব ঘটনায় তারা জড়িত নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.