দিনাজপুর পার্বতীপুরের শ্রেষ্ঠ সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রীতম সাহা

মোঃ আসাদুল্লাহ আল গালিব,দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি:
বিভাগীয় পর্যায়ে রাজস্ব ও ভূমি সেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য দিনাজপুর জেলায় শ্রেষ্ঠ সহকারী কমিশনার(ভূমি) হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন পার্বতীপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভূমি) প্রীতম সাহা।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ভালো কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা মূল্যায়নে সহকারী কমিশনার(ভূমি) জেলা পর্যায়ে দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। দিনাজপুর জেলার ১৩টি উপজেলার ১৩ জন এসিল্যান্ডের মধ্যে এ শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেন তিনি। জেলার চৌকস অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ গত সোমবার ১৬ মে এক বার্তায় ভূমি মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানান। মেধা, সততা, দক্ষতা, সাহসিকতা, আন্তরিকতা, দৃঢ় মনোবল, সৃজনশীলতা, মার্জিত ব্যবহার, বিনয়সহ অসাধারণ গুণের এক অনবদ্য সংমিশ্রণে তাঁর এ অর্জন বলে অনেকেই মনে করেন।

পার্বতীপুর বাসীর জন্য দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাওয়া এ কর্মকর্তার অসামান্য অর্জনে উপজেলা প্রশাসন পার্বতীপুর-দিনাজপুর অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত এবং তাঁর প্রতি নিরঙ্কুশ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

মানিকগঞ্জ জেলার কৃতি এ সন্তান ৩৫-তম বিসিএস প্রশাসনের চৌকস অফিসার (প্রীতম সাহা) ৯ মাস পূর্বে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  হিসেবে দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলায় যোগদান করেন। নয় মাসে শতভাগ সততার সাথে তাঁর উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি মাদক বিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে দুই শতাধিক মাদক অপরাধীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করেছেন তিনি। তাঁর এই ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি দিনাজপুর জেলার সেরা এসিল্যান্ড হিসাবে এ খ্যাতি/সাফল্য অর্জন করেছেন। এর আগে যশোর জেলায় কর্মকালীন সময়ে সততার সাথে ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি সরকারের শুদ্ধাচার সনদেও ভূষিত হন।

এছাড়াও ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে অল্প সময়ের মধ্যে তিনি ইউএনও স্টিভ কবিরের নির্দেশে সততা, দক্ষতা ও সদাচারণের সাথে অনেক কাজ করেছেন এবং করোনাকালীন কোভিড-১৯ মোকাবেলা ও গণসচেতনতা বৃদ্ধিতে নিরলস পরিশ্রম করে সমগ্র উপজেলায় সে সময় ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছিলেন বলেও জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.