কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে পূর্নিমার জোয়ারে উত্তাল ডেউ আঁচড়ে পড়ছে উপকূলে

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা:
ভালু ক্ষয় রক্ষা না হলে নিমিষে হারিয়ে ফেলতে পারি কুয়াকাটা,পূর্নিমার জোয়ারের প্রভাবে সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় পানির চাপ বেড়েছে যার ফলে পটুয়াখালীর কলাপাড়া-কুয়াকাটার সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় আঁচড়ে পড়ছে উত্তাল ডেউ অতিরিক্ত স্রোতের চাপে, ভালু ক্ষয় দেখা দিয়েছে সমুদ্রতীরে।

বুধবার (১৮ মে) কুয়াকাটা সৈকতসহ সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় জোয়ারে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি ও উত্তাল ডেউ লক্ষ্য করা যায়, যার ফলে কুয়াকাটায় আগত পর্যটকদের মাইকিং করে সমুদ্রে নামতে নিষেধ করা হচ্ছে এছাড়া সৈকতের তীরবর্তী এলাকায় দেখা দিচ্ছে বালুক্ষয়ের।অতিরিক্ত পানির চাপে ক্ষতির মুখে পড়ছে উপকূলের জেলেরা।

কুয়াকাটা সৈকতের ফিস ফ্রাই মার্কেট সহ অনেকগুলো ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এদিকে উপজেলার রামনাবাদ এলাকার চরচান্দুপাড়া গ্রামের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে পানি প্রবেশ করায় ক্ষতিরমুখে প্রায় ২০-৩০টি পরিবার।

কুয়াকাটা ফিস ফ্রাই দোকানি মনির জানান, জোয়ারের পানি অনেক তাই দোকান বন্ধ করে দিয়েছি, যেখানে দোকান ছিল সেখানে এখন কোমর সমান পানি, পানির চাপ কমলে আবার দোকান নিয়ে বসব।

কুয়াকাটার জেলে মোঃ রশিদ মাঝি বলেন, অতিরিক্ত স্রোতের চাপে আমরা সাগরে রাখা জাল পালা জাগাতে পারি না এবং আমাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন পুলিশ পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ জাগো নিউজকে বলেন, সমুদ্র উত্তাল তাই সকল পর্যটকদের সমুদ্রে নামতে বার-বার মাইকিং করে নিষেধ করা হচ্ছে এবং আমাদের টিম সার্বক্ষণিক কাজ করছে পুরো সৈকতে।

জেলা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, একদিকে পূর্নিমার প্রভাব অন্যদিকে উত্তরবঙ্গ ও ভারতের মেঘালয়ে অতিরিক্ত বৃষ্টি হওয়ার কারনে সমুদ্রে পানির চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে যার ফলে উত্তাল ডেউ সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় আঁচড়ে পড়ছে তবে দু-একদিনের মধ্যে স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরে আসতে পারে। পায়রা সমুদ্র বন্দর এলকায় কোনো প্রকার সতর্ক না থাকলেও উপকূলীয় নদী বন্দর এলাকায় হালকা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *