কোম্পানীগঞ্জে ফেসবুক কমেন্টকে কেন্দ্র করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-লুটপাট, গ্রেফতার-২

নোয়াখালী প্রতিনিধি:
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের ফেসবুক কমেন্টকে কেন্দ্র করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা,ভাংচুর ও লুটপাটের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ব্যবসায়ীরা। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ২জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলো চরকাঁকড়া ইউনিয়নের নুরুল হুদার ছেলে মেহেদী হাসান হৃদয় (১৮) ও বসুরহাট পৌরসভা ৭নম্বর ওয়ার্ডের আজিজুল হকের ছেলে রমজান আলী (২০)।

গতকাল সোমবার ১৬ মে রাত পৌনে ১০টার দিকে উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের পেশকারহাট রাস্তার মাথায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৭ মে) সকালে পেশকারহাট রাস্তার মাথা বাজার কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম বাহাদুর বাদী হয়ে ১৯জনকে করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর মঙ্গলবার দুপুরের দিকে পেশাকারহাট রাস্তার মাথায় ব্যবসায়ী ও দোকানে সন্ত্রাসী হামলা এবং ভাংচুরের প্রতিবাদে ভুক্তভোগী ব্যবাসায়ীরা মানববন্ধন করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক মাস আগে মেহেদী হাসানের (১৮) নামে এক যুবকের একটি ফেসবুক পোস্টে ব্যাঙ্গাত্মক ইমুজি কমেন্ট করে চরকাঁকড়া ৯নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুর রহমান কচির ছেলে সাইদুর রহমান শুভ। ওই ফেসবুক কমেন্টের সূত্র ধরে মূলত ঘটনার সূত্রপাত হয়। এরপর গত ১৪ মে বিকেলের দিকে উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের নাজিরহাট সড়কে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে কয়েকজন ছাত্রীকে খারাফ উক্তি করে ইভটিজিং করে মেহেদী হাসান হৃদয় ও একই ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের পাটোয়ারী বাড়ির ইমন পাটোয়ারী (১৮)। এ ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দা শুভ আমি প্রতিবাদ করলে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ইভটিজিংকারীরা তাকে মারধর করে চলে যায়।

পেশকারহাট রাস্তার মাথা বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম বাহাদুর ও মামলা সূত্রে জানা যায়, পরে ইভটিজিংকারী হৃদয় ও একই ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সবুজের ভাই রনির নেতৃত্বে রোববার দিবাগত রাত ৮টার দিকে পেশকারহাট রাস্তার মাথায় চরকাঁকড়া ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ সবুজের ব্যক্তিগত কার্যালয়ের সামনে ও একই এলাকার জিরো পয়েন্টে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদকারী যুবকদের ওপর হামলা চালায়। ওই সময় দুই দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এরপর গতকাল সোমবার রাত পৌনে ১০টার দিকে হঠাৎ পেশকারহাট রাস্তার মাথা বাজারের ৪০টি দোকাল হামলা করে ৪টি দোকান ভাংচুর ও কয়েকটি দোকানে লুটপাট চালায় একই ইউনিয়নের ৬নম্বর ও ৭নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা হৃদয়,রনি,রমজান আলী মো.ইমনসহ ২০-২৫জন যুবক। এ সময় হামলাকারীরা ২ লক্ষ ৪০হাজার টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় এবং তিনটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ৮-১০টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। এ সময় হামলাকারীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ব্যাপক ককটেল বিস্ফোরণ করে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসির দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম মিজানুর রহমান জানান, ফেসবুক পোস্টে কমেন্টের সূত্র ধরে এ ঘটনা সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামিসহ দুইজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.