বাগেরহাটে ৫ হাজার ২০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ, ৯০ হাজার টাকা জরিমানা

শেখ সোহেল, বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি:
বাগেরহাটে ৫২০০ লিটার অবৈধ সয়াবিন তেল জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর। জব্দ তেলের মধ্যে বোতলজাত ৭৫০ লিটার তেল বোতলে লেখা দামে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করা হয়। বুধবার (১১ মে) দুপুরে বাগেরহাট শহরের নাগের বাজার ও তেল পট্টি এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই তেল জব্দ ও বিক্রি করা হয়।

এ সময় অবৈধভাবে তেল মজুদের দায়ে তিন ব্যবসায়ীকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ড্রামে ডেলে রাখা অবশিষ্ট তেল দ্রুততম সময়ের মধ্যে সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রির নির্দেশ দেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর, বাগেরহাটের সহকারি পরিচালক আব্দুল্লাহ আল ইমরান।

জব্দ তেলের মধ্যে পাঁচ লিটারের বোতল ৭৬০ টাকা, ২ লিটার ৩৩৫ টাকা এবং ৮ লিটার ১২৮০ টাকা করে ভোক্তা পর্যায়ে বিক্রি করা হয়। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরের এমন উদ্যোগে খুশি স্থানীয়রা।

তেল ক্রেতা মনিরুল ইসলাম বলেন, বাজারে বর্তমানে বোতল জাত সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১৯৮ টাকা এবং খোলা সয়াবিন তেল ১৮০ টাকা থেকে ২১০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু ১৫২ টাকা দরে আমি ৫ লিটার তেল কিনেছে। এতে প্রায় আমার ২৫০ টাকা সাশ্রয় হয়েছে। এভাবে যদি মাঝে মাঝে সরকারি কর্মকর্তারা অভিযান পরিচালনা করেন, তাহলে আমাদের কিছুটা উপকার হয়।

রহিমা বেগম নামের আরেক ক্রেতা বলেন, বাজারে তেল কিনতে আসলে দোকানিরা যা ইচ্ছে তাই ব্যবহার করেন। অতিরিক্ত দামও দিতে হয় তাদের। আজ কম দামে তেল কিনতে পেরে খুব ভাল লাগছে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর, বাগেরহাটের সহকারি পরিচালক আব্দুল্লাহ আল ইমরান বলেন, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে অবৈধভাবে তেল মজুদের দায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন আইন-২০০৯ এর ৪৫ ধারায় তেলপট্টি এলাকার মেসার্স শ্রী ভান্ডারকে ৭০ হাজার, মেসার্স সুভাষ চন্দ্র পালকে ১০ হাজার এবং রবীন্দ্রনাথ পাল এ্যান্ড সন্সকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এই তিন ব্যবসায়ী গুদাম থেকে ৫ হাজার ২০০ লিটার তেল জব্দ করা হয়েছে। ভবিষ্যতেও ভোক্তা অধিকার রক্ষায় আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এর আগে চিলতমারী, ফকিরহাটসহ বিভিন্ন বাজারে জেলা প্রশাসন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর অভিযান চালিয়ে অবৈধ মজুদদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.