আজও বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের প্রচন্ড চাপ

জায়েদ ইবনে শহিদ,শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধিঃ
আজো সকাল থেকেই বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের প্রচন্ড চাপ শুরু হয়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে কর্মস্থলমুখী যানবাহন ও যাত্রীদের উপচেপড়া ভীড় পড়ে ঘাটে। লঞ্চ ঘাটে যাত্রী নিয়ন্ত্রনে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ব্যারিকেড দিয়ে যাত্রী নিয়ন্ত্রণ করছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে আজও শিমুলিয়া থেকে খালি লঞ্চ-ফেরি-স্পীডবোট এনে চাপ সামাল দেয়া হচ্ছে। মাত্র ৬টি ফেরি দিয়ে পারাপার করায় বাংলাবাজার ফেরি ঘাট এলাকায় পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে ৪ শতাধিক যানবাহন। এছাড়াও মটরসাইকেলের দীর্ঘ লাইন পড়েছে সকাল থেকেই।

সরেজমিন জানা যায়, রবিবার সকাল থেকেই বাংলাবাজার ঘাটে কর্মস্থলমুখী যাত্রী যানবাহনের ভীড় বাড়তে শুরু করে। বেলা বাড়ার সাথে ঘাট এলাকায় যাত্রীদের উপচেপড়া ভীড় পড়ে। বিভিন্ন যানবাহনে দক্ষিনাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে যাত্রীরা বাংলাবাজার ঘাটে আসছেন। যাত্রী চাপ সামাল দিতে এদিনও শিমুলিয়া থেকে খালি ফেরি, লঞ্চ ও স্পীডবোট আনা হচ্ছে একের পর এক। বাংলাবাজার ঘাট থেকে শিমুলীয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি লঞ্চ ও স্পীডবোট ছিল যাত্রীতে পরিপূর্ন। লোডমার্ক অনুযায়ী লঞ্চগুলো যাত্রী পারাপার করছে। মাত্র ৬ টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করায় ঘাট এলাকায় পারাপারের অপেক্ষায় ৪ শতাধিক যানবাহনের দীর্ঘ লাইন পড়েছে। ঘাট এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, র‌্যাবসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইন শৃংখলা বাহিনী দায়িত্ব পালন করছেন। নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়,বিআইডব্লিউটিএ ও বিআইডব্লিউটিসি থেকে আলাদা টিম ঘাটে পাঠানো হয়েছে। এদিকে দক্ষিনাঞ্চল থেকে আসা যানবাহনগুলো অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে যাত্রীরা অভিযোগ করেন।

বিআইডব্লিউটিসি বাংলাবাজার ঘাট ম্যানেজার মো: সালাউদ্দিন বলেন, আজো কর্মস্থলমুখো যাত্রী ও যানবাহনের চাপ রয়েছে। চাপ সামাল দিতে আমরা শিমুলীয়া ঘাট থেকে খালি ফেরি বাংলাবাজার ঘাটে আনছি। যেহেতু শিমুলীয়া পাড়ে যানবাহনের চাপ নেই তাই ফেরিগুলো শিমুলীয়া পাড়ে যানবাহন আনলোড করেই সাথে সাথে বাংলাবাজার ঘাটে আনতে পারছি।

বাংলাবাজার ঘাট নৌ পুলিশের পরিদর্শক মো: জাহানুর বলেন, আমরা স্পীডবোট নিয়ে পদ্মায় টহল অব্যাহত রেখেছি। যাত্রী চাপ সামাল দিতে শিমুলীয়া পাড় থেকে খালী লঞ্চ, স্পীডবোট দ্রুত বাংলাবাজার ঘাটে পৌছানোর ব্যবস্থা করছি। ঘাটেও আমরা দায়িত্ব পালন করছি। মানুষ যাতে স্বাচ্ছন্দে কর্মস্থলে পৌছতে পারে সে ব্যাপারে সকল ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *