ঈদে ভোলার ইলিশা মেঘনার তীরে দর্শনার্থীদের ভিড়

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ঈদ-উল ফিতর উৎসবকে ঘিরে ভোলার ভ্রমণ কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীর ঢল নেমেছে। করোনার কারণে দুই বছর ঈদের আনন্দ ছিল অনেকটাই ম্লান। সংক্রমণ কমায় আবার যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছে ঈদ উৎসব। দীর্ঘদিন পর এবার ঈদুল ফিতরের ছুটিতে ফের জমে ওঠে বিনোদন কেন্দ্রগুলো। ভোলার বেশ কয়েকটি পর্যটনকেন্দ্র ঘুরে দেখা যায় উৎসবমুখর পরিবেশ।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ইলিশা মেঘনার তীরে হাজারো দর্শনার্থীর ভিড়। ঈদের দিন দুপুর থেকে বিনোদন প্রেয়সীরা এই নদীর পাড়ে ভিড় করছেন। জেলার বিভিন্ন জায়গায় থেকে দর্শনার্থীরা ভিড় জমিয়েছেন এই মেঘনার তীরে। পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে বেড়েছে বেচাকেনা। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি আয় করছেন তারা। দর্শনার্থীরা ঘুরতে এসে নদীতে নৌ ও স্পিড বোটে করে নদীতে ঘুরছেন। সকলেই ঈদের আনন্দ ভাগাভাগির মধ্যে ছুটির দিনগুলো অতিবাহিত করছেন। দর্শনার্থীদের জন্য নিরাপত্তা দিচ্ছে ইলিশা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ টিম।

ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা জানান, পরিবার পরিজন নিয়ে বেড়ানোর জন্য ভোলার ইলিশায় মেঘনা নদীর পাড় এলাকাটি খুবই সুন্দর। তবে মেঘনা নদীর পাড়ে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুলতে পারলে সরকার যেমন রাজস্ব পাবে তেমনি মানুষজন নিরাপদে বেড়াতে পারবে। ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ফরিদ উদ্দিন বলেন,ইলিশা মেঘনার নদীর পাড়ে বেড়াতে আসা দর্শনার্থীদের জন্য সকল ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। নৌপথসহ দর্শনার্থীদের যাতে কোন ধরনের সমস্যায় পড়তে না হয় সেই লক্ষে কাজ করা হচ্ছে।

এ ছাড়া বাঘমারা ব্রিজ, তুলাতলী পার্ক, খেয়াঘাট ব্রিজ, শান্তিরহাট ব্রিজ, ভোলা সরকারি স্কুল মাঠ, পৌরসভা ও জেলা পরিষদ চত্বর, লালমোহনে সজিব ওয়াজেদ জয় ডিজিটাল পার্ক, চরফ্যাশনের জ্যাকব টাওয়ার এবং শেখ রাসেল ডিজিটাল শিশু পার্কে মানুষের আগ্রহ বেশি। এসব স্পটে বিনোদনের আশায় ছুটে আসছেন তরুণ-তরুণী ও শিশু-কিশোরসহ সব বয়সের এবং সব শ্রেণিপেশার মানুষ। ঈদের দিন থেকে এসব ভ্রমণ কেন্দ্রে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষের সমাগম হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.