টাঙ্গাইলের মধুপুরে বনে লেক খননের প্রতিবাদে আদিবাসীদের প্রতিবাদ সমাবেশ

মোঃ সোহেল আহমেদ, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের মধুপুরে আদিবাসীদের ভূমিতে বন বিভাগ কর্তৃক লেক খনন পরিকল্পনার প্রতিবাদে সম্মেলিত আদিবাসী জনতার প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার (২৫ এপ্রিল) সকাল ১১ টায় টাঙ্গাইলের মধুপুরের দোখলা চৌরাস্তায় জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সাবেক সভাপতি অজয় এ মৃ’র সভাপতিত্বে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশের আগে ভূটিয়া বাজার থেকে বিশাল মিছিল নিয়ে দোখলা চৌরাস্তায় গিয়ে সমাবেশ হয়। 

প্রতিবাদ সমাবেশে মধুপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. ছরোয়ার আলম খান উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন। আদিবাসীদের আন্দোলনের সাথে একাত্ততা পোষণ করেছেন তিনি। ভূমির বিষয়টি নিয়ে কৃষিমন্ত্রীর সাথে বসবেন এবং এ ষড়যন্ত্র রুখতে কাজ করবেন বলে মতবাদ ব্যক্ত করেন।

এসময় গারো স্টুডেন্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক লিয়াং রিছিলের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন (বাগাছাস) এর সভাপতি জন জেত্রা, বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অলিক মৃ, জমির মালিকদের পক্ষে মুকুল দারু,বাংলাদেশ আদিবাসী যুব ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক টনি ম্যাথিউ চিরান সহ প্রমূখ। 

সভাপতির বক্তব্যে প্রবীণ আদিবাসী নেতা অজয় এ মৃ বলেন, শত শত বছরের বংশপরম্পরায় আমরা আমাদের ভূমিতে চাষবাস করে জীবিকা নির্বাহ করছি। কিন্তু বন বিভাগ প্রায় সময় উন্নয়নের নামে আদিবাসীদের ভূমি দখল উচ্ছেদ করার চেষ্টা করে। তিনি আরো বলেন, আমরা আমাদের কৃষি জমিতে কোনভাবেই লেক খনন করতে দিব না।

প্রতিবাদ সমাবেশে ছাত্রনেতা জন জেত্রা বলেন, কৃষি জমি নষ্ট করে বিনোদনের নামে লেক খনন এ কেমন উন্নয়ন? আমরা আমাদের চোখের জলের উপর কাউকে প্রমোদ তরী চালাতে দিব না। জীবন থাকতে আমরা আমাদের কৃষি জমির এক ইঞ্চি মাটিও ছাড়বো না।

সমাবেশে সংহতি বক্তব্যে বলেন, বন বিভাগ সৃষ্টির আগে থেকেই আদিবাসীরা এ অঞ্চলে বসবাস করে আসছে। নিজেদের জীবন জীবিকা জন্য এই জমিতে চাষবাস করে আসছে। বন বিভাগ কোন অধিকারে আদিবাসীদের কৃষি জমিতে সাইনবোর্ড টানিয়ে সংরক্ষিত বনাঞ্চল ঘোষণা করে। ভূমি রক্ষার আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য আদিবাসী নেতাদের নামে মিথ্যা মামলা করে আমাদের ন্যায্য আন্দোলনকে দাবিয়ে রাখতে পারবেন না। বরং যত আদিবাসীদের উপর মামলা হামলা করবেন ততই আমাদের  আন্দোলন দাবানলে পরিনত হবে। দাবানলের আগুন ছড়িয়ে পড়লে আপনাদের ফায়ার সার্ভিস দিয়েও নিবাতে পারবেন না।

প্রতিবাদ সমাবেশে সংহতি জানিয়ে বক্তব্যে  যুবনেতা টনি ম্যাথিউ চিরান বলেন, উন্নয়নের নামে আদিবাসীদের কৃষি জমিতে যদি লেক খনন করতে যান তাহলে সেটি হবে আগুনের উপর ঘি ঢালা। আদিবাসীরা উন্নয়নের বিরোধী না কিন্তু অমানবিক উন্নয়নের বিরোধী। আমাদের জীবিকার  উপর লেক খনন করার চেষ্টা করলে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তুলবো।অবিলম্বে  দূর্নীতিবাজ বন কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করতে হবে। লেক খনন পরিকল্পনা বাতিল করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.