যশোরে জোড়া খুন, ঘাতক বিপুল ও মুকুল আটক

যশোর প্রতিনিধি:
যশোর জেলার চৌগাছার টেঙ্গুরপুর গ্রামে শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে দুই সহোদর আইয়ূব ও ইউনূস হত্যাকাণ্ডের ঘাতক দুই সহোদর বিপুল খান (৪২) ও মুকুল খান (৩৫) আটক হয়েছে।

শুক্রবার ভোররাতে চৌগাছায় এলাকায় অভিযান চালিয়ে চৌগাছা থানা পুলিশ তাদের আটক করেন।

ঘাতক বিপুল ও মুকুল খান চৌগাছার টেঙ্গুরপুর গ্রামের আফজাল খানের ছেলে।

ঘাতকদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক চৌগাছা থানা পুলিশ হত্যা কাজে ব্যবহৃত রক্তমাখা চাপাতি উদ্ধার করেছে । এছাড়া বিপুলের স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার রাত দশটার দিকে জেলার চৌগাছা উপজেলার চৌগাছা-মহেশপুর মহাসড়কের টেঙ্গুরপুর নামক স্থানে সর্দার ব্রিকসের সামনে হোসেনের চায়ের দোকানে ভাটার শ্রমিকের কাজের বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। একপর্যায়ে দোকানদার মুকুলের সাথে ইউনুস আলী খানের সাথে হাতাহাতি হয়। এ ঘটনার পর ইউনুসকে মুকুল, বিল্লাল ও বিপুল মারপিট করে। পরবর্তীতে শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে ইউনুস খান বাড়িতে যেয়ে তাঁর ভাই আইয়ুব খাঁন ও ভাতিজা আসাদুজ্জামান খানসহ জ্ঞাতিগোষ্ঠীদের নিয়ে মুকুলের দোকানে এসে তাঁর প্রতিবাদ করতে গেলে মুকুল তার ভাই বিপুল , বিল্লাল ও তাদের বাবা আফজাল খান মিলে ইউনুস খান ও তাঁর ভাই আইয়ুব খান এবং আসাদুজ্জামান খানকে গাছি দা ও বটি দিয়ে কোপাতে থাকে।এতে ইউনুস খান, আইয়ুব খান ও আসাদুজ্জামান খনন গুরুতর জখম হয়। স্থানীয়রা তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ইউনুছ আলী খান এবং আয়ূব আলী খানকে মৃত ঘোষণা করেন। এবং গুরুতর যখন আসাদুজ্জামান খানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়।

চৌগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, গত রাতে দুই সহোদর হত্যা কান্ডের ঘটনায় থানায় একটা হত্যা মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।এ ঘটনার পরপরই চৌগাছা থানার পুলিশ ঘাতকদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রাখে। এক পর্যায়ে রাতভর অভিযানের পর সকাল নয়টার দিকে চৌগাছার টেঙ্গুরপুর গ্রামের একটি মাঠের মধ্যে থেকে তাদের আটক করা হয়। হত্যাকাণ্ডের সাথে আর কারা কারা জড়িত আছে সে বিষয়ে পুলিশ খতিয়ে দেখছে। আটক আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে আগামীকাল তাদেরকে আদালতে হস্তান্তর করা হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.