ঝালকাঠিতে সৎ মামার বিরুদ্ধে ভাগিনার কবরস্থান দখল চেষ্টায় হয়রানির অভিযোগ

আবু সায়েম আকন, ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধিঃ 
ঝালকাঠির রাজাপুরে পারিবারিক কবরস্থান দখল চেষ্টায় হয়রানির অভিযোগে সৎ মামার বিরুদ্ধে ভাগিনা মো. হানিফ হাওলাদার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের পালট এলাকায় নিজ বাড়িতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। এ সময় হানিফ হাওলাদারের পিতা মো. রফিজ উদ্দিন হাওলাদার উপস্থিত ছিলেন। 

হানিফ হাওলাদার সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানায়, হানিফের পিতা রফিজ উদ্দিন ৪০ বছর পূর্বে তার ফুপু কালু বেগমের কাছ থেকে ৫শতক জমি ক্রয় করে পারিবারিক কবরস্থান নির্মাণ করেন। পরবর্তীতে ঐ কবরস্থানেই রফিজ উদ্দিনের ফুপু ও ফুপার মৃত্যুর পরে তাদেরও দাফন করা হয়। কিন্তু একই এলাকায় আজাহার আলী সিকদারের ছেলে ও হানিফের সৎ মামা মো. মোস্তফা সিকদার ঐ পারিবারিক কবরস্থান দখল করতে হানিফ ও তার পরিবারকে দীর্ঘদিন থেকে মামলা সহ বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছে। বার বার ঐ কবরস্থানে মোস্তফা সিকদার টয়লেট নির্মাণ করে জমি দখলের চেষ্টা চালায়। 

হানিফের বাবা মূর্খ ৮৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ। বয়সের ভারে দিকবিদিক অবস্থা, তাকে মোস্তফা ভুল বুঝিয়ে ঐ জমির মূল দলিল খানাও নিয়ে আটকে রেখেছে। হানিফের পরিবারকে বিপদে ফেলতে তাদের বিরুদ্ধে মোস্তফা একাধিক মামলা করে। সকল মামলায় হানিফের পরিবারের পক্ষ রায় পেলেও হয়রানীর কৌশল বন্ধ হয়নি মোস্তফার। মোস্তফা তার কাজ হাসিলের জন্য নিজস্ব অর্থায়নে এলাকার বিভিন্ন জনকে ভুরি-ভোজ করিয়ে থাকেন। কয়েক মাস পূর্বে তাদের স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন সুরু হানিফের পিতা রফিজ উদ্দিনকে সৎ মামার মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে নিয়ে রফিজ তার বিরোধীয় জমি বুঝে পেয়েছে এই মর্মে একটি কাগজে স্বাক্ষর নেয়। 

গত ৩১ মার্চ হানিফ ও তার স্ত্রীকে জমি-জমার সুষ্ঠ বন্টন করা হবে এই মর্মে একটি নোটিশ প্রদান করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান। এখন হানিফ মিয়া ধারনা করছেন তার পিতার কাছ থেকে চেয়ারম্যান যেই স্বাক্ষর নিয়েছিল তার কারনে হানিফ ও তার পরিবার বড় ধরনের সমস্যার সম্মূখীন হতে যাচ্ছেন। এই সমস্যা থেকে পরিত্রান পেতে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের দারস্ত হয়েও কোন সমাধান না পেয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কমনা করছেন হানিফ।

এ ব্যপারে জানতে অভিযুক্ত মো. মোস্তাফা সিকদারের ব্যবহৃত মুঠো ফোনে ফোন দিয়ে (০১৭২৭২০৬৫৫৯) নম্বরটি বন্ধ পাওয় যায়।

বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন সুরু স্বাক্ষর নেয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, মোস্তাফা সিকদারের কাছে জমি কবলা দিয়ে এখন ফিরিয়ে নিতে চায় রফিজ উদ্দিন ও তার ছেলে হানিফ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.