‘নিরাপদ ইশকুলে ফিরি’ বিষয়ক মতবিনিময় সভা

স্টাফ রিপোর্টার:
রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক সেভ দ্য চিলড্রেন ও কর্মজীবী কল্যাণ সংস্থা (কেকেএস) এর যৌথ উদ্যোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘নিরাপদ ইশকুলে ফিরি’ বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে পারলে শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে।

কর্মজীবী কল্যাণ সংস্থা কেকেএস এর নির্বাহী পরিচালক ও রাজবাড়ী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তৃতা করেন রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাহাবুর রহমান শেখ, রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, রাজবাড়ী পৌরসভা মেয়র আলমগীর শেখ, গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিজুল ইসলাম, গোয়ালন্দ পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডল, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আজমীর হোসেন, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আলীমুর রেজা, জলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে ইয়াছমিন করিমি,বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসিন উদ্দিন বতু, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি জ্যোতি সংকর ঝন্টু, রেড ক্রিসেন্ট রাজবাড়ী জেলা ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক শামীমা আক্তার মুনমুন, রাজবাড়ী প্রেসক্লাব সভাপতি জহুরুল হক, সাপ্তাহিক অনুসন্ধান সম্পাদক বাবু মল্লিক, আহম্মদ আলী মৃধা কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ জিয়াউর রহমান, বহরপুর কলেজের সহকারী অধ্যাপক খাইরুল ইসলাম মিন্টু, জাহানারা বেগম কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আলমগীর হোসেন, কেকেএস এর সহকারী নির্বাহী পরিচালক ফকীর জাহিদুল ইসলাম রুমন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রকল্পটি সম্পর্কে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন করেন সেভ দ্য চিলড্রেনের প্রজেক্ট ম্যানেজার সাইফুল ইসলাম সেলিম।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, সেভ দ্য চিলড্রেন একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। যা ইতিমধ্যে কার্যকরী ভুমিকা পালন করছে। জেলার সর্বত্র এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে পারলে শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে।

সভাপতির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার বলেন, শিশুরাই সবার আগে। শিশুদের নিরাপদ ভবিষ্যৎ ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে। এ ক্ষেত্রে আমি সকল মহলের সহযোগিতা কামনা করি।

স্বাগত বক্তব্যে কেকেএস এর সহকারী নির্বাহী পরিচালক ফকীর জাহিদুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারি শিশুদের শিক্ষাক্ষেত্রে যে ঘাটতি সৃষ্টি করেছে সকলের সহযোগিতায় প্রকল্পটির সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে পুরণ হবে বলে আমি বিশ^াস করি।

সভায় জানানো হয়, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ায় সুবিধাবঞ্চিত এবং পিছিয়ে পড়া শিশুদের শিক্ষার সুযোগ প্রসারিত করার লক্ষ্যে সেভ দ্য চিলড্রেন এবং কেকেএস দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় নতুন প্রকল্পটির মাধ্যমে ঝরে পড়া ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা যাতে শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য আন্তরিকভাবে কাজ করবে।

বিশ^ব্যাপি করোনা মহামারির ছোবল মানুষের নানাবিধ ক্ষেত্রে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। বিশেষত শিক্ষা ক্ষেত্রে যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নেয়া খুবই কষ্টসাধ্য। ইতিমধ্যে সরকার প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু করে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায় পর্যন্ত সংক্ষিপ্ত পাঠক্রম প্রণয়ন করে পাঠদান করা সহ কোন কোন ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের শ্রেণি উন্নয়ন করে লেখাপড়া নিয়মিত করণের প্রচেষ্টাও করছে।

এখন মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরাই শুধু নয়, শিশুদের বিদ্যালয়মূখী করাটাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ হিসাবে দেখা দিয়েছে। কেকেএস এই প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী প্র্রতিষ্ঠান হিসাবে গোয়ালন্দ উপজেলার ১৮টি বিদ্যালয়ে শিশুদের শিক্ষাঘাটতি পূরণ ও বিদ্যালয়মূখী করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.