শ্রেণি কক্ষে বোরকা নিষিদ্ধ করায় মানববন্ধন

নোয়াখালী প্রতিনিধি:
নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ৭নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের শের-ই বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের শ্রেণি কক্ষে ছাত্রীদের বোরকা পরিধান নিষিদ্ধ করায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থী ও মুসলিম তৌহিদি জনতা। সোমবার (২১ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও মুসলিম তৌহিদি জনতার ব্যানারে উপজেলার সেবারহাট বাজারে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

এ সময় মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে প্রধান শিক্ষককে পদত্যাগ দাবি করে বলেন, ৯০ শতাংশ মুসলিম দেশে ইসলাম বিরোধী কোন কার্যক্রম এবং সিদ্বান্ত আমরা মেনে নেব না। প্রধান শিক্ষক পদত্যাগ না করে তাহলে আগামী দিনে আরও কঠোর কর্মসূচী দিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শের-ই বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেন বোরকা বিদ্যালয়ে নিষিদ্ধ করা হয়নি। গত ৯মার্চ এক বিজ্ঞপ্তি বলা হয়েছে ছাত্রীরা শ্রেণি কক্ষে বোরকা খুলে ক্লাস করবে। আবার বাড়ি ফেরার পথে বোরকা পরিধান করে বাড়ি ফিরবে। কিন্তু ১০ মার্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সিন্ধান্ত মোতাবেক পুনরায় আগের সিন্ধান্ত সম্পূর্ণ বাতিল করা হয়। তৃতীয় কোন পক্ষের ইন্ধনে এ মানববন্ধন হয়েছে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী বলেন,বিষয়টা বোরকা নিষিদ্ধ এ রকম না। বোরকা পরে ক্লাসে ঢুকলে অনেক সময় মেয়েদের বোরকা ছেলেরা পরে আসে, মেয়ে যেটা স্টুডেন্ট সেটা না এসে আরেক টা আসে। আবার জামায়াত শিবিরের কিছু কার্যক্রম এভাবে বোরকা গায়ে দিয়ে চিঠি আদান প্রদান হয়।

ওসি ইকবাল হোসেন আরও বলেন, এ জন্য বলছে আরকি বোরকা পরি আসুক সমস্যা নেই। তবে যখন ক্লাস করবে তখন যেন মুখটা খোলা থাকে। স্কুল শেষে যাওয়ার সময় আবার বোরকা পরে যাবে। এ রকম একটা সিন্ধান্ত প্রাথমিক ভাবে দিয়ে ছিল। পরে এটা আবার স্থগিত করছে। অতি উৎসাহী হয়ে মানববন্ধন করা হয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.