আগৈলঝাড়ায় শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের জমি দখলের চেষ্টা ও মারধরের অভিযোগে আসামি গ্রেফতার

মঞ্জুর লিটন, বরিশাল জেলা প্রতিনিধি:
বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার রাহুৎপাড়া গ্রামের শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের ব্যবহৃত বাথরুম ভাঙ্গা ও গাছ কর্তন , অনধিকার প্রবেশ , চুরি ও মারধরের অভিযোগে প্রতিপক্ষ দেবাশীষ হালদার ও বাবুল হালদারের বিরুদ্ধে আগৈলঝাড়া থানায় মন্দির কমিটির পক্ষে আয়কর আইনজীবী ( সমিরন রায় ) বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ০৬ তাং১৪/০৩/২০২২ ইং । এরই পরিপ্রেক্ষিতে আগৈলঝাড়া থানা চৌকস পুলিশ উপ পরিদর্শক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান এর নেতৃত্বে মামলার ১ নাম্বার আসামী দেবাশীষ হালদার (৩৫) পিতা- গনেশ চন্দ্র হালদার কে গ্রেফতার করে।

মামলা সূত্রে জানা যায় যে দীর্ঘদিন যাবত অত্র রাহুৎপাড়া গ্রামের শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের ব্যবহৃত সম্পত্তি প্রতিপক্ষ মৃত গনেশ চন্দ্র হালদার এর পুত্র দেবাশীষ হালদার ও বাবুল হালদার ভোগ দখলের পায়তারা চালায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪/০২/২০২২ইং সকাল ১০ঃ৩০ ঘটিকার সময় মন্দিরের পাশ থেকে কয়েকটি ছোট বড় গাছ কেটে নিয়ে যায় এবং মন্দিরে ব্যবহারকৃত বাথরুম ভেঙে ফেলে দেয় এবং যাতায়াতের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বেড়া তৈরি করে। এ ব্যাপারে মন্দির কমিটি বাধা সৃষ্টি করলে তাদের বিভিন্ন অকথ্য ভাষায় গাল মন্দ করে। মামলার বাদী সমীরণ রায় বাধা প্রদান করলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং শারীরিকভাবে অত্যাচার করে। সমিরন রায়ের কাছ থেকে মানি ব্যাগে থাকা বেশ কিছু টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় এবং তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
এছাড়াও জানা যায় যে উক্ত দেবাশীষ হালদার কিছুদিন পূর্বে সরকারি ওয়াবদার জায়গা থেকে কয়েকটি গাছ কেটে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় আগৈলঝাড়া উপজেলা বন বিভাগ গাছগুলি জব্দ করে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান বন বিভাগের কর্মকর্তা।

অত্র মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জনাব মনিরুজ্জামান মিঞা ও পুলিশ পরিদর্শক মাজহারুল ইসলাম সুমন জানান মামলার বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। অত্র মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করে বরিশাল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *