ডাব বিক্রি করে চলে না বাবলু’র সংসার

কাজী তানভীর মাহমুদ, স্টাফ রিপোটারঃ:
৪০ বছর বয়সী বাবলু বিশ্বাস। রাজবাড়ী জেলার কোর্ট চত্বর,পান্না চত্বর,রেলগেট,আজাদী ময়দান সহ শহরের বিভিন্ন মোড়ে ডাব বিক্রি করতে দেখা যায় তাকে। দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে ডাব বিক্রি করেই চলছে বাবলুর সংসার। কিন্তু বর্তমানে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্যের যে দামবৃদ্ধি পেয়েছে তাতে বাবলুর চোখে মুখে এখন হতাশার ছাপ।
ডাব বিক্রেতা বাবলু রাজবাড়ী জেলা সদরের রামকান্তপুর ইউনিয়নের মাটিপাড়া গ্রামের ৭নং ওয়ার্ডের সামাদ বিশ্বাসের ছেলে।

তার সংসারে বৃদ্ধ মা,স্ত্রী ও ২ সন্তান রয়েছে। বড় ছেলে দশম শ্রেনী ও ছোট মেয়েটি ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে লেখাপড়া করে।
ডাব বিক্রেতা বাবলুর সাথে কথা হয় কোর্ট চত্বরে। আলাপকালে বাবলু বলেন, গত ১৬ বছর ধরে আমি বিভিন্ন গ্রামে পাড়া মহল্লায় ঘুরে ঘুরে মানুষের বাড়ি বাড়ি থেকে অনেক কষ্ট করে গাছে উঠে ডাব কিনে আনি।পরে ভ্যানে করে সারাদিন রাজবাড়ী জেলা শহরের বিভিন্ন স্থানে তা বিক্রি করি।প্রতিটি ডাব আকার ভেদে ৩০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়। গড়ে প্রতিদিন ৭০টির মত ডাব বিক্রি করি। ডাব বিক্রি যে সামান্য আয় হয় তাতে সংসারের খরচ জোগাড় করা দিন দিন কঠিন হয়ে পড়ছে। বর্তমানে বাজারে চাল,ডাল,আটা,তেল,ডিম,মাছ সহ সব ধরনের খাবারের দাম অনেক বাড়তি।প্রতিদিনই দাম বাড়ছে।তারপর তো ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ আছেই। এরপর বৃদ্ধ মায়ের ঔষধ কিনতে হয়। সব মিলিয়ে অভাবে ও হতাশার মধ্যে পরেছি। যারা দেশ পরিচালনা করেন তাদের কাছে অনুরোধ জানাই খাদ্য দ্রব্যের দাম যত দ্রæত সম্ভব কমাতে হবে। না হলে আমার মত যারা গরীব মানুষ তারা তো না খেয়ে মরবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *