মেঘনায় মধ্যরাত থেকে মাছ ধরা নিষিদ্ধ

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ভোলার চর ইলিশার মদনপুর থেকে ভোলার চরপিয়াল পর্যন্ত মেঘনা নদীর ৯০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মধ্যরাত থেকে ২ মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধ। এছাড়া দেশের ইলিশের ছয় অভয়াশ্রমের মধ্যে পাঁচটিতে সব ধরনের মাছ ধরার ওপর দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সরকার।

সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টা থেকে এ নিষেধাজ্ঞা শুরু হবে, যা আগামী (৩০ এপ্রিল) পর্যন্ত চলবে। মৎস্য কর্মকর্তারা জানান, ইলিশ সম্পদ বাড়াতে সরকার জাটকা নিধন রোধে ২০০৬ সালে দেশের অভয়াশ্রমগুলোয় নিষেধাজ্ঞা কার্যক্রম শুরু করে। এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এবারও মার্চ থেকে এপ্রিল এই দুই মাস অভয়াশ্রম গুলোয় ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা চলাকালে জেলেরা সরকারি সহায়তা পাবেন। আর কেউ এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে মৎস্য আইন অনুযায়ী শাস্তি পাবেন। নিষেধাজ্ঞাকালে এসব এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানসহ সার্বক্ষণিক নজরদারির ব্যবস্থা থাকবে।

ভোলা মৎস্য অধিদফতরের কর্মকর্তারা জানান, আগে দেশের বিভিন্ন নদ-নদী ঘিরে পাঁচটি অভয়াশ্রম ছিল। কিন্তু ২০১৯ মালে অভয়াশ্রমের সংখ্যা আরও একটি বেড়ে ছয়টি হয়েছে। এসব অভয়াশ্রম হলো পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় আন্ধারমানিক নদের ৪০ কিলোমিটার, চরইলিশার মদনপুর থেকে ভোলার চরপিয়াল পর্যন্ত মেঘনা নদীর ৯০ কিলোমিটার, ভোলার ভেদুরিয়া থেকে পটুয়াখালীর চররুস্তম পর্যন্ত তেঁতুলিয়া নদীর ১০০ কিলোমিটার, চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচরের ৭০ কিলোমিটার, লক্ষ্মীপুরের চর আলেকজান্ডার পর্যন্ত মেঘনা নদীর ৩০ কিলোমিটার ও শরীয়তপুরের নড়িয়া থেকে ভেদরগঞ্জ পর্যন্ত নিম্ন পদ্মার ২০ কিলোমিটার এলাকা।

বরিশাল মৎস্য অধিদফতরের বিভাগীয় উপপরিচালক আনিছুর রহমান তালুকদার বলেন, ছয়টির মধ্যে পাঁচটি অভয়াশ্রমে এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.