কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় কাস্টমস সুপার কর্তৃক ব্যবসায়ী নির্যাতনের প্রতিবাদে ঘন্টা ব্যাপি রাস্তা অবরোধ

মোঃ রফিকুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম:
কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় জয়মনিরহাট বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুল কাদেরকে কাস্টমস অফিসে তালাবদ্ধ করে কাস্টমস সুপার উমর ফারুক ও তার লোকজন শারীরিক নির্যাতন করায় গতকাল সোমবার দুপুরে সাধারণ ব্যবসায়ীরা ঘন্টা ব্যাপি রাস্তা অবরোধ করে দোষীদের বিচার দাবি করেছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলাধীন জয়মনিরহাট ছোটখাটামারী এলাকার বাসিন্দা জয়মনিরহাট বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুল কাদের দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সাথে ব্যবসা করে আসছেন। জয়মনিরহাট বাজারে ভাই ভাই ফুড প্রডাক্টস্ মুড়ি, চিড়া, লাজ্জা-সেমাই উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের মালিক মোঃ আব্দুল কাদের নিয়ম মেনেই এলাকায় ব্যবসা করে আসছেন। জয়মনিরহাট বাজারে কাস্টমস এর লোকজন নিয়মিত ভাই ভাই ফুড প্রডাক্টস এর প্রতিষ্ঠান সমূহে গিয়ে ভ্যাট, ট্যাক্স এর নামে প্রতি মাসে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা আদায় করে আসছিল। কাস্টমস এর সুপার উমর ফারুক ও ইন্সপেক্টর ফরিদ এর হয়রানী মুলক কর্মকান্ডের কারণে ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের থেকে শুরু করে জয়মনিরহাট বাজারে অধিকাংশ সাধারণ ব্যবসায়ী অতিষ্ট।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারী কাস্টমস এর লোকজন কোন প্রকার নোটিশ ছাড়াই ভাই ভাই ফুড প্রডাক্টস এর প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ব্যবসায়ীক সকল গুরুত্বপূর্ণ খাতা পত্র সিজ করে নিয়ে আসে। ব্যবসায়ীক খাতা পত্র কাস্টমস এর লোকজন নিয়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের মারাত্মক ভাবে ক্ষতির সম্মুখিন হয়। কারণ ব্যবসায়ীক খাতা পত্রে গুরুত্বপূর্ণ লেনদেনের হিসাব রয়েছে। কাস্টমস কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা ও ব্যবসায়ীক খাতা পত্র উদ্ধারের জন্য মোঃ আব্দুল কাদের গতকাল সোমবার দুপুরে জয়মনিরহাট কাস্টমস অফিসে গেলে কাস্টমস সুপার উমর ফারুক মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে ব্যবসায়ীক সমঝোতা করার জন্য আব্দুল কাদেরকে প্রস্তাব দেয়। কিন্তু ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের তার ব্যবসায়ীক খাতা পত্র ফেরত চাওয়া সহ কাস্টমস সুপারের অনৈতিক প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ক্ষিপ্ত হয়ে কাস্টমস সুপারের নেতৃত্বে তার লোকজন অফিসের গেট তালা দিয়ে ব্যবসায়ীকে মারপিট করেন।

এ ঘটনায় সাধারণ ব্যবসায়ীরা ক্ষুব্ধ হয়ে জয়মনিরহাট বাজারে প্রধান সড়ক অবরোধ করে দোষী কাস্টমস সুপারের অপসারণ ও বিচার দাবি করেন। পরিস্থিতি উত্যপ্ত হলে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সাধারণ ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে সমঝোতার মাধ্যমে রাস্তার অবরোধ তুলে দেয়া হয়। পরে ভূরুঙ্গামারী ব্যবসায়ী সমিতির আহ্বানে মাইকিং করে সাধারণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাধারণ ব্যবসায়ীরা থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এব্যাপারে অভিযুক্ত কাস্টমস সুপার উমর ফারুক এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে কথা বলবেন না বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *