রাজবাড়ীতে বিয়ের দাবিতে অনশনে দুই সন্তানের জননী

কাজী তানভীর মাহমুদ,স্টাফ রিপোটারঃ
রাজবাড়ীর পাংশায় বিয়ের দাবিতে ব্যবসায়ী চয়ন কুমার বিশ্বাসের বাড়িতে দুই সন্তানের জননী দীপ্তি রানি বিশ্বাসের (৩৫) অনশন করছেন। শনিবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) উপজেলার হাবাসপুর ইউনিয়নের হাবাসপুর মাঠপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ব্যবসায়ী চয়ন হাবাসপুর ইউনিয়নের হাবাসপুর মাঠপাড়া গ্রামের সানা বিশ্বাসের ছেলে ও দীপ্তি রানি একই গ্রামের হাবিলাল কুমার বিশ্বাসের স্ত্রী।
ব্যাবসায়ী চয়নের ঘরে প্রায় ২০ বছর পূর্বের বিবাহিত এক স্ত্রী ও তার দত্তক নেওয়া এক পালিত সন্তান রয়েছে।

জানা গেছে, ব্যবসায়ী চয়ন ও হাবু লালের স্ত্রী দীপ্তি রানির দীর্ঘ দিন ধরে অনৈতিক সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে দীপ্তি রানি চয়নের বাড়িতে অবস্থান নেয়। এ ঘটনার পর থেকে ব্যবসায়ী চয়ন কুমার বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে।

অনশন অবস্থায় দীপ্তি রানি বিশ্বাস বলেন, চয়নের স্ত্রী বাবার বাড়ি ও অন্যান্য জায়গায় বেড়াতে গেলে বাড়ির গরু রাখা সহ বিভিন্ন কাজের দায়িত্ব আমাকে দিয়ে যেত। আমি চয়নের বাড়িতে কাজ করা অবস্থায় চয়ন বিভিন্ন সময় আমাকে জোরপূর্বক অনৈতিক কাজ করতে চায়। আমি মানসম্মানের ভয়ে কাউকে বলিনি। সম্প্রতি তার ন্ত্রী বাড়িতে না থাকায় আমাকে বাড়ির বিভিন্ন কাজ করতে বলে যান। আমি কাজ করতে এলে আমার সাথে, জোরপূর্বক অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়। বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে আমার স্বামী আমাকে রাখবে না বলে জানায়। এমতাবস্থায় আমি বিয়ের দাবিতে তার বাড়িতে আসতে বাধ্য হয়েছি।

দীপ্তি রানীর স্বামী হাবুলার কুমার বিশ্বাস(৪২) বলেন, আমার স্ত্রী চয়নের বাড়িতে বিভিন্ন সময়ে কাজ করতে যেত। তারই সুযোগ নিয়ে চয়ন জোর পূর্বক আমার স্ত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক করে। বিষয়টি জানাযানি হয়ে গেলে আমার স্ত্রী আমার সংসার ছেড়ে চলে গেছে আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বাসিন্দা মো. গাউস আলী বলেন, বিষয় অত্যান্ত নেক্কার জনক এবং নিন্দনীয় বিষয়টি নিয়ে অনেক দিন ধরে এলাকায় ব্যাপক কানাঘুষা চলছে। বিষয়টির সাথে এলাকার মানসম্মান জরিত এর একটা সুষ্ঠ সমাধান করা দরকার।

এঘটনায় ব্যবসায়ী চয়ন কুমার বিশ্বাস পলাতক রয়েছে। পলাতক থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.