দায়িত্ব প্রাপ্তির পরে শিক্ষার্থী বান্ধব কাজে সরব একুশে হলের সম্পাদক সোহাগ

ঢাবি প্রতিনিধি:
দীর্ঘ ৫ বছর পরে অনুষ্ঠিত হওয়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হল সম্মেলনের মাধ্যমে হল শাখা পরিচালনার জন্য একঝাক তরুণ নেতৃত্ব তুলে এনেছে সংগঠনটি। দায়িত্ব প্রাপ্তির পরপরই শিক্ষার্থী বান্ধব কাজে নেমে পরেছেন অমর একুশে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হাসান সোহাগ।

ইতোমধ্যে, শিক্ষার্থীদের নানাবিধ ভোগান্তি লাঘবে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন এবং বাস্তবায়নে নেমেছেন তিনি।

এর মধ্যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালের মূল ক্যাম্পাস থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হল, সুফিয়া কামাল হলে যেতে বেগ পোহাতে হত অমর একুশে হলের সামনে (বঙ্গবাজার-আনন্দবাজার রাস্তায়) অবৈধভাবে দখল করা ফুটপাতটির জন্য। যেখানে ফুটপাতটি দীর্ঘদিন আশেপাশের দোকানদাররা তাদের দোকানের মালামাল রেখে দখল করে রেখেছিল বলা জানা যায়।

যার ফলে, ফজলুল হক মুসলিম হল, সুফিয়া কামাল হল এবং অমর একুশে হলের শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক চলাচলের অসুবিধা কারন হিসেবে দাড়িয়ে ছিলো।

এছাড়াও, শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, নিয়মিত কিছু উদ্বাস্তু ও মাদকাসক্তদের দৌরাত্ম সন্ধ্যার পর থেকে সক্রিয় ছিলো যেটা তাদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি ।

শিক্ষার্থিদের এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে, শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয় আমলে নিয়ে ফুটপাতটি চলাচলের উপযোগী করতে অবৈধ দখলদারি উচ্ছেদ করে, নিয়মিত তদারকি করার দ্বায়িত্ব নেন একুশে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হাসান সোহাগ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোহাগ বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি সবার আগে আমাদের কাছে প্রাধান্য পায়। তারই ধারাবাহিকতায় এই কার্যক্রম পরিচালনা করেছি। ছাত্রলীগ সবসময়ই সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে ছিল এবং থাকবে।’

এর আগে, গত ১৪ই ফেব্রুয়ারী অমর একুশে হলের শিক্ষার্থীদের আয়োজিত ‘অভিষেক লগ্নে হৃদয়ের আলাপন’ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা তাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরে। সেখানে শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানের প্রক্রিয়ায় আলোকপাত করেন এই তরুণ ছাত্রনেতা।

হলের শিক্ষার্থীরা জানান, ‘দায়িত্ব পাওয়ার পরপরই তিনি আমাদের দীর্ঘদিনের বিদ্যমান সমস্যাগুলো সমাধানের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আমরা তাঁর এরূপ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই এবং তাঁর প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।’

এই সামগ্রিক বিষয়ে ইমদাদুল হাসান সোহাগ বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক যেকোনো দাবি পূরণে ছাত্রলীগ সবসময়ই সচেষ্ট । হলে বিদ্যমান অনান্য সমস্যা অতিদ্রুত সমাধানের চেষ্টা করছি ।’

সোহাগ আরও বলেন, ‘আমরা প্রতিনিয়তই হলকে শিক্ষার্থীবান্ধব , যুগোপযোগী ও আধুনিকায়ন করতে হল প্রশাসনের সাথে নিয়মিত আলোচনা করে যাচ্ছি ।ইতোমধ্যে হল প্রশাসনের সাথে গত বছরের হল উন্নয়ন ফি মওকুফের বিষয়ে আলোচনা করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.