ফরিদপুরে প্যানেল চেয়ারম্যান গঠন কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আহত- ৫

মাহবুব পিয়াল,ফরিদপুর:
ফরিদপুরের নগরকান্দায় ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান গঠনকে কেন্দ্র করে দুই ইউপি সদস্যের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে সদস্য সহ আহত হয়েছেন ৫ জন। রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার পোড়াদিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, রবিবার দুপুরে উপজেলার পোড়াদিয়ার বাজার এলাকায় অবস্থিত কাইচাইল ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে নব নির্বাচিত সদস্যদের মধ্য থেকে প্যানেল চেয়ারম্যান নির্ধারন নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ নিয়ে সভায় হট্টগোল হলে প্যানেল চেয়ারম্যান প্রার্থী ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য আক্তারুজ্জামান বাকী বের হয়ে যান। এতে প্রতিদন্ধী প্রার্থী ৩ নং ওয়ার্ডের সদস্য আলামিন ক্ষীপ্ত হয়। এই সুত্র ধরে আলামিন তার সমর্থকদের নিয়ে বিকালে নগরকান্দা উপজেলা পরিষদ প্রবেশ পথে আক্তারুজ্জামান বাকীকে মারপিট করে। পরে সন্ধ্যায় পোড়াদিয়া বাজারে বাকী মেম্বরের সমর্থকেরা আলামিন মেম্বরকে মারপিট করে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এতে ৫ ব্যাক্তি আহত হয়। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাস্থান থেকে পুলিশ ৭ হামলাকারীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সামিউল হক, কার্তিক মন্ডল, ইমন মিয়া, হাসিব মিয়া, জাহিদ মিয়া, চাঁন মিয়া ও আনোয়ার ফকির।

আক্তারুজ্জামান বলেন, প্যানেল চেয়ারম্যান গঠন নিয়ে পরিষদে হট্টগোল হয়। এতে আমি সভা থেকে বের হয়ে আসি। বিকালে নগরকান্দায় আলামিন লোকজন নিয়ে আমাকে মারপিট করে। পরে সন্ধ্যায় পোড়াদিয়া বাজারে শালিস মিমাংসা হওয়ার কথা তাই আমি পোড়াদিয়া বাজারে যাই। সেখানে পৌছানোর সাথে সাথে আলামিনের লোকজন আমাকে আবারও মারপিট করার জন্য আমার উপর হামলা করে। তখন আমার লোকজন পাল্টা হামলা করলে সংঘর্ষ বাধে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আলামিনের সাথে কথা বলতে তার মোবাইলে ফোন দিলে একটু পরে কথা বলবে বলে জানান। পরে তাকে বার বার ফোন দিলেও ফোন রিসিভ করেননি।

কাইচাইল ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা খানের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিল হোসেন বলেন, কোন পক্ষের লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে ঘটনাস্থান থেকে ৭ ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে সোমবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.