কাদামাটি-খাল গর্ত ভরা তিস্তা ‘ফ্লাড বাইপাস’ সড়ক

আবু হাসান (আকাশ),লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ‘ফ্লাড বাইপাস’ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে ওই সড়ক দিয়ে শত শত যাত্রীবাহী ও মালবাহী পরিবহণ চলাচলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

জানা যায়, গত বছরের অক্টোবর মাসে ওই উপজেলার তিস্তা নদীর বন্যার প্রবল স্রোতের কারণে ভেঙে যায় ৩ শত মিটারের ‘ফ্লাড বাইপাস’ সড়কটি। এরপর ইমারজেন্সি বরাদ্দ নিয়ে প্রায় ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়কটির সংস্কার করেন কর্তৃপক্ষ। তবে সঠিকভাবে মেরামতের অভাবে ওই সড়ক দিয়ে চলাচল কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। অপরিকল্পিতভাবে সংস্কারের কারণে এ পরিস্থিতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা থেকে ডিমলা উপজেলা হয়ে নীলফামারী যাতায়াতের একমাত্র সড়ক ‘ফ্লাড বাইপাস’। এ সড়কে সামান্য বৃষ্টিতেই বিভিন্ন স্থানে কাদামাটিসহ ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন দুই জেলার হাজার হাজার মানুষ ও গাড়ি চালকরা। খানাখন্দে ভরা এ সড়কে প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলছে হালকা ও ভারি যান। এছাড়া অটোরিকশা ও ইজিবাইকের মতো ছোট ছোট যানবাহন উল্টে গিয়ে প্রতিদিনই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, ঠিকাদারের চরম অবহেলা ও স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কর্মকর্তাদের সঠিক তদারকি না থাকায় সড়কটির বেহাল অবস্থা হয়েছে। খানাখন্দে ভরা ওই সড়কে একটু বৃষ্টি হলেই গর্তগুলোতে পানি জমে বেহাল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। ফলে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন যাত্রী ও চালকরা। শুধু তাই নয়, রোগী পরিবহণ ও জরুরি প্রয়োজনে দ্রুত যাতায়াত করা যায় না ওই সড়ক দিয়ে। আর বৃষ্টি হলে ভোগান্তি ওঠে চরমে।

সড়কটি দ্রুত সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন গাড়ি চালক ও স্থানীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.