ঠাকুরগাঁওয়ে স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা, আহত ১

মোঃ রিফাত সরকার মাহিম,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের পড়ুয়া ছাত্র মেহেদীকে কুপিয়ে হত্যার পর ফেলে পালিয়ে যায় দূবৃত্তরা। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় স্বজনদের আহাজারিতে ভাড়ি হয়ে উঠে হাসপাতাল। 

দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্র মেহেদী মিরাজকে হারিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন নিহতের স্বজনরা। স্বজনদের আহাজারিতে পুরো হাসপাতাল ভাড়ি হয়ে উঠে। বুধবার সন্ধ্যায় জেলার বিসিক শিল্প নগরী এলাকায় তাকে কুপিয়ে হত্যা করে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় দূর্বৃত্তরা।       

স্বাজনরা জানান, মেহেদী বাসায় থেকে পারিবারের কাজে ব্যস্ত ছিল। হঠাৎ বন্ধু পরিচয় দিয়ে তাকে ডেকে নিয়ে যায়। ঘন্টা খানিক পর স্থানীয় লোকজন খবর দেয় মেহেদী পথের ধারে পরে আছে।       

স্বজনরা দ্রæত ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। এ ঘটনায় আরমান নামে আরো একজন চুরিঘাতে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। 

এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় দাবি স্বজনদের। আর পুলিশ বলছেন অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।  

নিহতের স্বজনরা জানান, বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মেহেদীকে হত্যা করে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। অবিলম্বে হত্যাকারিদের আইনের আওতায় এসে শাস্তি দিতে হবে। তা না হলে অনেক মায়ের কোল খালি হবে। 

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম জানান, পুলিশ তৎপর রয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

নিহত মেহেদী জেলা সদরের পরিষদপাড়া গ্রামে নানার বাসায় থেকে লেখাপড়া করতো বলে জানান স্বজনরা। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *