ভোলায় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় বহিষ্কার হচ্ছেন ১৭ বিদ্রোহী প্রার্থী

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ভোলায় ১২ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে শেষ মুহুর্তে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় ১৭ বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার করা হচ্ছে। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে দল থেকে বহিষ্কার হচ্ছেন তাঁরা। দলের বৈঠক শেষে অভিযুক্তদের বহিষ্কারে চূড়ান্ত চিঠি দেয়া হবে বলে জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম।

অপরদিকে রোববার (১৯ ডিসেম্বর) মনোনয়নপত্র প্রত্যারের শেষ দিনে চেয়ারম্যান পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন ৬ জন। বাকি দুইজন হলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দলের হাতপাখা প্রতীক প্রার্থী ও বিএনপি দলীয় এক জন। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রত্যাহারকারীরা হচ্ছেন, ভেলুমিয়া ইউনিয়নে ৫ জন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার খান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি মোঃ মহসিন খান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক আবুল খায়ের লিটন ও তাঁর মা আজিজুননেছা। এছাড়াও বিএনপি দলীয় আব্দুল জলিল খান।

ধনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার, ভেদুরিয়া ইউনিয়নের হারুন অর রশিদ ও দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে হাতপাখা প্রতীকের আক্তার হোসেন। বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে যাঁরা বহিস্কৃত হচ্ছেন। তাঁরা হলেন, শিবপুর ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো: সিরাজুল আলম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ শিবলি হাসান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হাসান মোর্শেদ জুয়েল। উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী নির্বাহী সদস্য মোঃ তাজুল ইসলাম। বাপ্তা ইউনিয়নে যুবলীগ সভাপতি কামাল হোসেন, তাঁর স্ত্রী বিবি আচিয়া বেগম ও ভাই মোঃ ইকরাম হোসেন। যুবলীগ নেতা টিটু হত্যা মামলা থাকায় কামাল হোসেন পলাতক রয়েছেন। ভেদুরিয়া ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ মোসলেউদ্দিন, যুবলীগ সভাপতি মোঃ মোস্তফা কামাল। পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কোষাধ্যক্ষ মোঃ নুরনবী। ইলিশা ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-দপ্তর সম্পাদক আনোয়ার হোসেন (ছোটন)।

রাজাপুর ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল হক মিঠু চৌধুরী। দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে যুবলীগ নেতা নওশাদ হোসেন ( মুন)। উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন জানান, বিদ্রোহীদের বিষয়ে এক সপ্তাহ আগেই চিঠি দিয়ে দলের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। যাঁরা সিদ্ধান্ত মেনেছেন, তাঁদের পুরস্কৃত করা হবে। যাঁরা মানেন নি, তাঁদের আজীবনের জন্য বহিস্কার করা হচ্ছে। অপর দিকে পূর্ব ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-দপ্তর সম্পাদক আনোয়ার হোসেন (ছোটন), উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো: সিরাজুল আলম, রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি রেজাউল হক মিঠু চৌধুরী, ভেদুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোসলেউদ্দিন পাটোয়ারী ও পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন আহম্মেদ বহিস্কার হওয়ার আগেই সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের মাধ্যমে দলের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *