বাগাতিপাড়ায় আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী উপাধ্যক্ষ শাহিদা খাতুন তার মনোনয়নপত্র জমা

মোঃ রাশেদুল আলম রুপক, নাটোর জেলা প্রতিনিধিঃ
নাটোরের বাগাতিপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী উপাধ্যক্ষ শাহিদা খাতুন তার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার(১৪ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলা নির্বাচন অফিসে উপজেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুল মজিদের কাছে তার মনোনয়পত্র জমা দেন।

এ সময় তার সঙ্গে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হোসেন, সাধারন সম্পাদক সেকেন্দার রহমানসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে প্রায় সহস্রাধিক নেতা-কর্মী এক মিছিল নিয়ে প্রার্থীর সঙ্গে উপজেলা চত্ত্বরে নির্বাচন কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। মনোনয়নপত্র জমাদানকালে বাইরে নেতা-কর্মীরা মুহুর্মুহু ‘জয়বাংলা’ এবং ‘নৌকা-নৌকা’ শ্লোগানে উপজেলা চত্ত্বর মুখরিত হয়ে উঠে।

এদিকে এদিন প্রার্থী শাহিদা খাতুনের বাড়িতে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নাটোর-৪ আসনের সাংসদ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, নাটোর-১ আসনের সাংসদ শহিদুল ইসলাম বকুল, বনপাড়া পৌর মেয়র কেএম জাকির হোসেনসহ বেশ কিছু নেতা-কর্মীরা প্রার্থীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।

জানা গেছে, মেয়র পদে প্রথমবারের মত একজন নারী প্রার্থীকে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা শাহিদা খাতুনকে মনোনয়ন দেয়া হয়। এই মনোনয়নের মধ্য দিয়ে বাগাতিপাড়া পৌরসভার নির্বাচনের ইতিহাসে মেয়র পদে প্রথমবারে মতো একজন নারী প্রার্থী সুযোগ পেয়েছেন। শাহিদা খাতুন বাগাতিপাড়া মহিলা ডিগ্রী কলেজের উপাধ্যক্ষ। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ে অনার্স শেষে ১৯৯৬ সালে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

পৌরসভা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বাগাতিপাড়া পৌরসভা ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০০৬ সালে প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে একাধারে প্রশাসক, পৌর চেয়ারম্যান এবং মেয়র পদে টানা ১৭ বছর দায়িত্ব পালন করেন মোশাররফ হোসেন। মামলা জটিলতায় আটকে থাকার পর দ্বিতীয়বারের মতো এই পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, তফসিল অনুযায়ী এই পৌরসভায় আগামী ১৬ জানুয়ারী ভোট গ্রহন। এছাড়া মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৫ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২০ ডিসেম্বর এবং প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৭ ডিসেম্বর। এই পৌরসভায় ৯ টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার রয়েছে ৮ হাজার ৪০১ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *