শ্রীপুরে সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশায় মনোনয়ন জমা দিলেন ৫৫ চেয়ারম্যান প্রার্থী

টি.আই সানি, গাজীপুর প্রতিনিধি:
পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে চেয়ারম্যান পদে মোট ৫৫ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সংরক্ষিত নারী আসনে (সদস্য পদে) ৮৩ এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩’শ ২৭ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। শ্রীপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্ণিং কর্মকর্তা আল নোমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নির্বাচনে রিটার্ণিং কর্মকর্তা আল নোমান বলেন, ৮টি ইউনিয়নে প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ থেকে ৮ জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ থেকে ৬ জন, জাতীয় পার্টি থেকে ২ জন, জাকের পাাির্ট থেকে ৬ জন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম থেকে একজন এবং স্বতন্ত্র ৩২ প্রার্থী মনোনয়পত্র জমা দেন।

মাওনা ইউনিয়ন থেকে মনোনয়ন জমা দেওয়া মাওনা চৌরাস্তা শামীম চক্ষু হাসপাতাল ও ইসলামীয়া ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক এন্ড হরমোন ল্যাব এর স্বত্ত্বাধিকারী শামীম জানান, তাঁর বাবা মরহুম নূরুল ইসলাম মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। মানুষের দাবীর কারণেই তিনি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন, তিনি জনগণের প্রার্থী। তাঁর চাওয়া নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী প্রার্থী এবং ভোটার প্রত্যেকেই যেন অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ পরিবেশের মধ্য দিয়ে নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে পারেন। তিনি নির্বাচনে বিজয়ী হলে গরীব-দুঃখী মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, মাদক নির্মূল, রাস্তা-ঘাট উন্নয়ন এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উন্নয়ন করে শিক্ষার অলো ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়া। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় মানুষ ঘরের দরজা খুলে ঘুমাবে এমন পরিবেশ বিনির্মাণেও তিনি ভূমিকা রাখবেন।

রাজাবাড়ী ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা ইফতেখারুল ইসলাম সিরাজী রাজীব। তিনি রাজাবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য, ইজ্জতপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ছাত্র কমান্ড এবং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক এবং শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী সরকারি কলেজ (ছাত্রলীগ) মনোনীত ছাত্র সংসদের সাহিত্য ও সাংষ্কৃতিক সম্পাদক ছিলেন এবং উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদেও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। তিনি বলেন, নির্বাচনে বিজয়ী হলে তৃণমূল মানুষের জন্য সরকারের দেয়া বয়স্ক-বিধবা ও অন্যান্য ভাতাসমূহ সঠিক ব্যক্তিদের প্রাপ্তির ক্ষেত্র নিশ্চিত করা। সকলের ঘরে প্রবেশের উন্নত যাতায়াত নিশ্চিতসহ অন্য সকল ক্ষেত্রে অংশগ্রহণমূলক সিদ্ধান্ত তথা সরকারি বরাদ্দের সঠক বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা।

একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা দেওয়া ফরিদা জাহান স্বপ্না এ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা প্রয়াত কুতুব উদ্দিন আহমেদের স্ত্রী। তিনি উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। তাঁর স্বামী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থাকায় রাজাবাড়ীর জনগণের শিক্ষা, মাদক, সন্ত্রাস নির্মূলসহ স্বামীর রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজ সুষ্ঠু বন্টনের মাধ্যমে নিশ্চিত করতে চান। তিনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশটা সবচেয়ে জরুরী। এটি যেন বজায় থাকে। সাধারণ জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে তিনি আজীবন জনগণের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চান।

মাওনা ইউনিয়নের সিঙ্গারদিঘী এলাকার ভোটার জহির উদ্দিন বলেন, ভোট গ্রহণের শুরু থেকে নির্বাচনী আমেজ বজায় থাকা পর্যন্ত সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ পরিবেশ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নিশ্চিত করতে হবে।

রাজাবাড়ী ইউনিয়নের কাফিলাতলী গ্রামের ভোটার তমিজ উদ্দিন বলেন, নির্বাচনী প্রচার প্রচাণায় কোনো ধরণের সংঘাত বা অস্থিতিশীল পরিবেশ যেন সৃষ্টি না হয়। সে ক্ষেত্রে প্রশাসন থেকে সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখা প্রয়োজন।

নির্বাচন অফিস সুত্র জানায়, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ১২ডিসেম্বর এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহাররের শেষ তারিখ ১৯ ডিসেম্বর। পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৫ জানুয়ারি। ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য চলতি বছরের মার্চে ভোটার তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। ইউনিয়নসমূহে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ১৬ হাজার ৮’শ ২২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৬০ হাজার ৫১ জন এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৫৬ হাজার ৭’শ ৭১ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *