ঝিনাগাতীতে শিশু যত্ন প্রকল্পের ১ কোটি ১৪ লাখ টাকা বিতরন

শাহাদাত হোসেন সোহাগ,শেরপুর:
১ হাজার ৪৯১ জন গর্ভবতী নারী ও শিশুর মায়েদের মাঝে ১ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা বিতরণ করা হয়।

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার সদর ইউনিয়নের ১ হাজার ৪৯১ জন গর্ভবতী নারী ও শিশুর মায়েদের মাঝে ১ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। আজ বুধবার সকালে ঝিনাইগাতী সরকারী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আইএসপিপি যতœ প্রকল্পের আওতায় এ টাকা বিতরণ করা হয়।

১ হাজার ৪৯১ জন গর্ভবতী নারী ও শিশুর মায়েদের মাঝে ১ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. লাইলী বেগম, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোফাজ্জল হোসেন চাঁন, যত্ন প্রকল্পের উপজেলার সুপারভাইজার মো. আসলাম আলী, সদর ইউনিয়নের সেফটিনেট প্রোগ্রাম অ্যাসিস্টেন্ট মো. ছামিউল ইসলাম প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তৃনমূলের ছিন্নমূল পরিবারের শিশুদের শৈশবকে বর্ণিল করতে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের পরিচর্যার জন্য ইনকাম সাপোর্ট প্রোগ্রাম ফর দ্যা পুওরেস্ট (আইএসপিপি) যতœ প্রকল্প নামের একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে সরকার। যত্ন প্রকল্পের আওতায় গর্ভবতী মা এবং পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মায়েদের সুবিধাভোগী হিসেবে তালিকা প্রণয়ন করা হয়। এরপর এসব যাচাই বাছাই করে চূড়ান্ত করে সুবিধাভোগী মায়েদের মাঝে এ টাকা বিতরণ করা হচ্ছে।

ঝিনাইগাতী সদর এলাকার সুবিধাভোগী দুই শিশুর মা মিনারা বেগম বলেন, ‘আমার দুই শিশুর যতœ ও পরিচর্য়ার জন্য সরকার আমাকে ৮ হাজার ২০০ টাকা দিয়েছে। এমন উদ্যোগ গ্রহণ করায় সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।’

যত্ন প্রকল্পের উপজেলার সুপারভাইজার মো. আসলাম আলী জানান, গত ২৩ নভেম্বর হাতিবান্দা ইউনিয়নের ৯৬৭ জন উপকারভোগীদের ৭৪ লাখ ৪২ হাজার ৪০০, মালিঝিকান্দায় ১ হাজার ৩৩৭ জনের মাঝে ১ কোটি ২ লাখ ৬৯ হাজার ৫০০ টাকা ও আজ ২৪ নভেম্বর ঝিনাইগাতী সদরে ১ হাজার ৪৯১ জন উপকারভোগীদের ১ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৯০০, গৌরিপুরে ১ হাজার ৫১ জনের মাঝে ৮০ লাখ ৩০ হাজার ১০০ টাকা বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়া আগামী ২৭ নভেম্বর ধানশাইলে ১ হাজার ১৪৮ জনের মাঝে ৮৯ লাখ ৮৪ হাজার ৭০০, কাংশায় ১ হাজার ৩৫০ জনের মাঝে ১ কোটি ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৮০০ ও আগামী ২৮ নভেম্বর নলকুড়ায় ১ হাজার ২৪৪ জনের মাঝে ৯৫ লাখ ৩৭ হাজার ৭০০ টাকা বিতরণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.