সেন্টমার্টিন দ্বীপে সাগর থেকে সাড়ে ২৩ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

এইচ এম আল আজাদ, সেন্টমার্টিন:
বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বাহিনীর সদস্যরা টেকনাফের উপকুলীয় ইউনিয়ন সেন্টমার্টিনদ্বীপের ছেড়াদ্বীপ সংলগ্ন সাগর থেকে ইয়াবার একটি বৃহৎ চালান উদ্ধার করেছে। কোস্টগার্ড সদস্যরা মাদক পাচারকারীদের আটক করতে পারেনি। দিক পরিবর্তন করে দ্রুত মিয়ানমারের জলসীমানার দিকে পালিয়ে যাওয়ায় মাদক চোরাকারবারীদের আটক করা সম্ভব হয়নি। উদ্ধারকৃত ৭ লক্ষ ৮০ হাজার পিস ইয়াবার মুল্য আনুমানিক সাড়ে ২৩ কোটি টাকা।

১৩ নভেম্বর বাংলাদেশ কোস্টগার্ড সদর দপ্তরের (মিডিয়া) কর্মকর্তা লে: খন্দকার মুনিফ তকি জানান, টেকনাফ কোস্টগার্ড সদস্যরা গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে মিয়ানমার হতে ইয়াবার একটি বড় চালান সেন্টমার্টিনদ্বীপের ছেঁড়াদ্বীপ সংলগ্ন সমূদ্র এলকা দিয়ে বাংলাদেশে উপকুলে অনুপ্রবেশ করবে।

উক্ত সংবাদের তথ্য অনুযায়ী ১২ নভেম্বর (শুক্রবার) দিবাগত রাতে টেকনাফ স্টেশন কমান্ডার লেঃ এম নাঈম উল হক এর নেতৃত্বে কোস্টগার্ড’র একটি চৌকষ দল বাংলাদেশ জলসীমা সাগরে অবস্থান নেয়। এরপর মিয়ানমার জলসীমা ক্রস করে আসা একটি ফিশিং ট্রলারের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে কোস্টগার্ড সদস্যগণ ট্রলারটি থামানোর জন্য সংকেত দেয়। ট্রলারে থাকা মাদক পাচারে জড়িত অপরাধীরা কোস্টগার্ড এর উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত দিক পরিবর্তন করে কৌশলে মিয়ানমারে দিকে পালিয়ে যেতে চাইলে কোস্টগার্ড সদস্যগণ ট্রলারটিকে ধাওয়া করে। এসময় মাদক পাচারকারীদল ৪টি বাদামী রঙের প্লাষ্টিকের বস্তা ট্রলার থেকে সমূদ্রে ফেলে দিয়ে মিয়ানমার সিমান্তের দিকে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যায়। এতে কোস্টগার্ড সদস্যরা মাদক পাচারকারীদের আটক করতে পারেনি।

পরবর্তীতে কোস্টগার্ড সদস্যগণ সাগর থেকে বস্তাগুলো উদ্ধার করে থেকে ৭ লক্ষ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবার চালানটি পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *