আমার জীবনে এমন সুস্থ ভোট দেখিনি’

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ভোলার দৌলতখান উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের শতবর্ষী নুরুল ইসলাম। বয়সের ভারে অনেকটা নুয়ে পড়েছেন। লাঠি ভর দিয়ে ভোট দিতে এসেছেন বাড়ির পাশের দুর্লভ সরকারি বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে। বয়োবৃদ্ধ ভোটার হওয়ায় লাইনে না দাঁড়িয়ে প্রশাসনের সহযোগিতায় ভোট দিয়েছেন। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বের হয়েই নিজের আত্মতৃপ্তির কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘আমার জীবনে এরকম সুস্থ্ ভোট দেখিনি, ভোট দিতে পেরে আমি খুশি।’বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ভোলার দৌলতখান উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। সকাল থেকেই এই উপজেলার সাত ইউনিয়নের ৬৯টি কেন্দ্রে এক যোগে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো। ভোট শুরু হওয়ার আগেই ব্যাপক উৎসাহ নিয়ে নারী-পুরুষ ভোটাররা লাইনে এসে দাঁড়িয়েছেন। প্রভাবমুক্ত পরিবেশে নিজেদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরে আনন্দিত তারা।

ভোলা জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, দৌলতখানের সাতটি ইউনিয়নে মোট ২৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৬ জন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৫৬ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ১৯৬ জন। এ সাতটি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা এক লাখ ১৩৯ জন। পুরুষ ভোটার ৫২ হাজার ২১জন ও নারী ভোটর ৪৮ হাজার ১১৮ জন। ইউনিয়ন গুলোর মধ্যে চরখলিফা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে একজন প্রার্থী থাকায় সেখানে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হচ্ছে না। ইউনিয়ন গুলো হলো- মপনপুর, চরপাতা, মেদুয়া, চরখলিফা, ভবানীপুর, দক্ষিণ জয়নগর, উত্তর জয়নগর। এর মধ্যে ছয়টি ইউনিয়নে ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হলেও চরখলিফা ইউনিয়নে ভোট হবে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে।

ভোলা জেলা নির্বাচন অফিসার আলা উদ্দিন আল মামুন বলেন, সাতটি ইউনিয়নে সকাল থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। নির্বাচনী এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, বিজিবি ও আনসার এবং ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিপুল সংখক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *