নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ২৮ দিন পর কবর থেকে গৃহবধুর লাশ উত্তোলন

মোঃ রাশেদুল আলম রুপক, নাটোর জেলা প্রতিনিধি:
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দাফনের ২৮ দিন পর কবর থেকে এক গৃহবধুর লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। রোববার দুপুরে জামনগর পুরাতন পশ্চিমপাড়া গ্রামের কবরস্থান থেকে তার এই লাশ উত্তোলন করা হয়। মৃত গৃহবধু ফাতেমা বেগম ওই গ্রামের রাসেল আহমেদের স্ত্রী এবং পার্শ্ববর্তী রাজশাহী জেলার চারঘাট উপজেলার নন্দনগাছি পোড়া ভিটা গ্রামের ঈমান আলীর মেয়ে।

জানা গেছে, মৃত ফাতেমা বেগমের বাবা ঈমান আলী গত ১৮ অক্টোবর আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় বাদির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে দাফনের ২৮ দিন পর লাশ উত্তোলন করা হয়। এসময় সেখানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিশাত আনজুম অনন্যা, ওসি সিরাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

মামলায় মৃত ফাতেমার বাবা অভিযোগ করেন, ২০১২ সালের ১৭ ডিসেম্বর রাসেলের সাথে ফাতেমার বিয়ে হয়। তাদের ৭ বছর বয়সী এক ছেলে রয়েছে। সংসার চলাকালে রাসেল যৌতুকের দাবিতে এক দফা তালাক দিয়ে পরে শালিশের মাধ্যমে ঘর সংসার শুরু করে। ঘটনার দিন ১০ অক্টোবর রাতে তার মেয়েকে জামাতা রাসেল অভিযুক্তদের যোগসাজশে বালিশ চাপা অথবা গ্যাস ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা করে গ্যাস ফর্ম এবং স্ট্রোক করে মারা যাওয়ার প্রচার চালিয়েছে। এছাড়াও পরদিন তড়িঘড়ি করে দাফন করা হয়েছে বলেও এতে অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় শ্বশুর ঈমান আলী বাদি হয়ে জামাতা রাসেল আহমেদ, জামাতার ভাই রাজিব আহমেদ, শ্বশুর খোরশেদ আলী এবং শ্বাশুড়ি তহমিনা বেগমকে অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা দায়ের করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *