দৌলতখানে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ২০

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ভোলার দৌলতখানে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এসময় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের হাজি বাড়ির দরজায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল বুধবার রাতে কলাকোপা ১নং ওয়ার্ডের তালা প্রতীকের মেম্বারপ্রার্থী ইয়ার হোসেন তার নির্বাচনী এলাকায় কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। এসময় প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী রাহাত তালুকদারের কর্মী-সমর্থকরা ওই প্রচারণায় হামলা চালায়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এসময় তালা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও কয়েকটি মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয় । সংঘর্ষে গুরুতর আহতরা হলেন- মেম্বার প্রার্থী ইয়ার হোসেন মনজুর, সেলিম, সাকিব, সজিব, ছালাউদ্দিন, সোহাগ, তামজিদ, রায়হান ও বাচ্চু। আহতদের দৌলতখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আহত মেম্বার প্রার্থী ইয়ার হোসেন জানিয়েছেন, বুধবার রাতে শান্তিপূর্ণ ভাবে তারা নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। এসময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী রাহাত তালুকদারের নেতৃত্বে ইমন, ইমরান ও কামালসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক লোক লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিত তাদের ওপর হামলা করে। এতে তার ১৫ জন কর্মী-সমর্থক আহত হয়। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

অন্যদিকে পাল্টা অভিযোগ এনে ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী রাহাত তালুকদার বলেন, উঠান বৈঠক চলাকালে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ইয়ার হোসেন দলবলসহ হামলা চালিয়ে তার ৫ জন কর্মীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে ও মোটর সাইকেল ভাঙচুর করে। তিনিও এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

এদিকে, দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলার রহমান জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *