গোবিন্দগঞ্জে পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী

মোঃ মতিয়ার রহমান (গাইবান্ধা) গোবিন্দগঞ্জ:
সবকিছুই ঠিকঠাক। রাতের আধারে নাবালিকা কন্যার বাড়ীতে হাজির বর ও বরযাত্রীরা। রান্নাও শেষ প্রায়। কাজী আসার অপেক্ষায় বিয়ে বাড়ীর সবাই। এরই মধ্যে কাজীর পরিবর্তে হাজির পুলিশ। ভেস্তে গেল সকল আয়োজন।

বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী ফারজান। মুচলেকা দিয়ে রক্ষা পেলেন কনে পক্ষ।

সোমবার (১১ অক্টোবর) রাত আনুমানিক ১১টার সময় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

থানা সূত্রে জানা যায়, নয়াপাড়া গ্রামের ফোরকানের মেয়ে নবম শ্রেণি পড়ুয়া ফারজানার বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পরিবারটি। সে অনুযায়ী আজ বিয়ের আয়োজন করে। খবর পেয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই বাড়িতে উপস্থিত হলে বর পক্ষ পালিয়ে যায় এবং বিয়ে ভেস্তে যায়।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)এ কে এম মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লেখা- পড়া শেষ না করা পর্যন্ত ফারজানার বিয়ে দিবে না পরিবারটি। লিখিতভাবে এমন অঙ্গীকার করায় ফারজানার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

এদিকে গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার তড়িৎ পদক্ষেপে বাল্য বিবাহ বন্ধ হওয়ায় স্থানীয় সূধী সমাজ বিষয়টিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *