বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস-২১

মাসুম বিল্লাহ, বগুড়া:
আজ ৯ অক্টোবর ২০২১, রোজ শনিবার, সারা বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে “বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস-২১”। এ বছরের প্রতিপাদ্য বিষয়,
“Sing,Fly,Soar-Like a bird”
(গান গাও, উড়ো, উড়ে যাও-পাখির মত)।
এ লক্ষ্যে সারাদেশে পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরসহ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কর্মীরা এই দিবসটি পালন করছে । “পরিবেশ প্রতিরক্ষা সংস্থা” অদ্য সকাল দশটায় এক বর্ণাঢ্য র‍্যালি ও পথসভার আয়োজন করে ।
বর্ণাঢ্য র‍্যালি ও পথসভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব মোঃ শাহিনুজ্জামান শাহীন,পরিচালক প্রোগ্রেসিভ স্কুল এন্ড কলেজ।

জনাব মোঃ কোরবান আলী, অধ্যক্ষ প্রোগ্রেসিভ স্কুল এন্ড কলেজ এবং সংগঠনের সভাপতি সোহাগ রায় সাগর সহ মোঃ আল মুন্তাকিম,শাহারিয়ার রহমানসহ অন্যান্য সদস্য ও প্রগ্রেসিভ স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক ও সংবাদকর্মী গণ ।

র‍্যালি শেষে পথসভায় সোহাগ রায় সাগর বলেন, পৃথিবীর প্রায় ১০ হাজার প্রজাতির পাখির মধ্যে ১৮৫৫(প্রায় ১৫%) প্রজাতির পাখি পরিযায়ী। বাংলাদেশের ৭০০ প্রজাতির পাখি রয়েছে। তার মধ্যে প্রায় ৩০০ প্রজাতির পাখি পরিযায়ী। এই পরিযায়ী পাখির মধ্যে প্রায় ৮ থেকে ৯ প্রজাতির পাখি গ্রীষ্মে এ দেশে আসে এবং শীতে চলে যায়। বাকি ২৯০ প্রজাতির পাখি শীতে আসে এবং গ্রীস্মের আগে এ দেশ থেকে চলে যায়। উত্তর গোলার্ধে এই অঞ্চলে শীতকালে তুষারপাত হয় না।  তাই ইউরোপ, মধ্য এশিয়া , সাইবেরিয়া ও চীন থেকে পরিযায়ী পাখিদের একটা অংশ বাংলাদেশে আসে । কেবল তাই নয় পশ্চিমের আরব ও আফ্রিকা এবং দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলের দ্বীপপুঞ্জ থেকে ঋতু পরিবর্তনের নানা সময়ে পাখিরা এখানে আসে।  পরিযায়ী পাখিদের এই যাতায়াতের পথ কে উড়ালপথ(Flyway) বলে। বিশ্বের সবচেয়ে ঘন উড়াল পথটি হচ্ছে ইউরোপ ও এশিয়া থেকে সিনাইয়ের ওপর দিয়ে আফ্রিকা যাওয়ার পথ ।

মোঃ কোরবান আলী বলেন পাখি শিকার আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী যদি কোন ব্যক্তি পরিযায়ী পাখি শিকার করেন তাহলে তার সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড অথবা ২ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

সংগঠনের উপদেষ্টা জনাব মোঃ শাহিনুজ্জামান শাহীন বলেন, পরিযায়ী পাখিদের সম্পর্কে বিশ্বজুড়ে সচেতনতা বাড়াতে 2006 সাল থেকে এই দিবসটি পালন শুরু করা হয়। বর্তমানে বিশ্বের জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পাখিদের আবাসস্থল ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে । এ কারণে পরিযায়ী পাখিরা মারাত্মক খাদ্য সংকটের মধ্যে পড়েছে । তাছাড়া এই সময় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ও শিকারের কারণে প্রতিবছর প্রচুর পরিযায়ী পাখিসহ দেশীয় পাখি মারা পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *