মেঘনায় ট্রলার ডুবির একদিন পর নিখোঁজ ১৮ জেলে উদ্ধার

সাব্বির আলম বাবু, ভোলাঃ
ইলিশ শিকারে গিয়ে মেঘনায় ট্রলার ডুবে ১৮জন মাঝি মাল্লা ও জেলে নিখোঁজ হওয়ার দুইদিন পরে উদ্ধার হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচর সংলগ্ন ভাসানচরের পূর্বে মেঘনা নদীর মোহনায় এফবি মা জননী-২ নামের একটি ট্রলার তলা ফেটে ডুবে যায় বলে জানান স্থানীয় জেলেরা। ট্রলারটি উপজেলার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের মাইনুদ্দিন মৎস্যঘাটের মহিউদ্দিন মিয়ার।

এর আগে গত শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় ৮নং ওয়ার্ডের ১৫ জন ও পাশ্ববর্তী জাহানপুর ইউনিয়নের ১জন এবং দৌলতখান উপজেলার ২জন জেলে নিয়ে মেঘনা নদীতে মৎস্য শিকারে যায়। ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মালেক মিয়া জানান, মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় ওই ট্রলারটির তলা ফেটে গিয়েছে বলে মাঝি মহিউদ্দিন তাঁর ভাই খলিলকে ফোন করে জানিয়ে ভাসানচরের পূর্ব দিকে মেঘনায় একটি ট্রলার নিয়ে তাদেরকে উদ্ধারের জন্য বলে। খবর পেয়ে বৃষ্টি ও ঝড়োবাতাসের মধ্যে ২টি ট্রলার ওই জেলেদের উদ্ধার করতে ঘাট থেকে ছেড়ে যায়। এমন ঘটনায় জেলেদের সন্ধান না পাওয়ায় জেলে পল্লীতে দিনভর চলে শোকের মাতম। ২৪ঘন্টা পর বৃহঃবার (৩০ সেপ্টেম্বর)  হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের জেলে খলিল উদ্দিন নিখোঁজ জেলেদের সন্ধান পান বলে মুঠো ফোনে এ প্রতিবেদককে জানান।

খলিল বলেন, আমার ভাই মহিউদ্দিন মাঝিসহ নিখোঁজ ১৮ জেলের সন্ধান পাওয়া গেছে তাঁরা সুস্থ্য আছে তাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তবে ট্রলারটির সন্ধান এখনো পাওয়া যায়নি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার বলেন, ট্রলারটি পাওয়া যায়নি তবে নিখোঁজ ১৮জন জেলেকে ঢালচরের একটি ট্রলার উদ্ধার করেছে বলে জেনেছি। উদ্ধারকৃত জেলেরা হলেন, মহিউদ্দিন মাঝি (৩২) দুলাল (৩৩) সাজাহান মুন্সি (৩৫) আবদুল মুনাফ (৩৭) মোসলেহ উদ্দিন (৩০) ওবায়দুল্লাহ (৩৫) নুরনবী (৪) হাবিবুল্লাহ মিঝি (৫৫) আজাদ (২০) রুবেল (২০) আলমগীর (৩৫) জাকির (২৫) সাজাহান (৬০) ফরিদ (৬০) বেলায়েত (৬০) জাহানপুরের বাসিন্দা জসিম (২৫) ও দৌলাতখান উপজেলার মঞ্জু (৪০)। শশিভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম বলেন, নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে স্থানীয় জেলে ও থানা পুলিশ নদীতে গিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *