মহিমাগঞ্জে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকান্ড বসতবাড়ি পুড়ে ছাই

মোঃ মতিয়ার রহমান,গাইবান্ধা, গোবিন্দগঞ্জ:
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জে এক চাতাল শ্রমিকের একটি বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। 

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ভোরে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে চাতাল শ্রমিক স্বামী ও গার্মেন্টস কর্মী স্ত্রীর বহু কষ্টে গড়ে তোলা টিনশেডের কাঁচা বাড়িটি কয়েক মিনিটের মধ্যে সম্পূর্ণ ভষ্মিভূত হয়েছে। এ সময় নিজ ও শিশুপুত্রের জীবন এবং পরনের লুঙ্গী ছাড়া আর কোন কিছুই রক্ষা করতে পারেননি হতভাগ্য বাড়ির মালিক। এতে এনজিওর ঋণ পরিশোধের জন্য ঘরে জমানো টাকা সহ তিন লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবারের লোকজন।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, বুধবার ভোরে রংপুর চিনিকল সংলগ্ন মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের চাতাল শ্রমিক মটরু মিয়ার বাড়িতে হঠাৎ করে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এ সময় তার স্ত্রী ও কন্যা গার্মেন্টসে চাকুরীর জন্য ঢাকায় থাকায় বাড়িতে শুধু মটরু মিয়া ও তার শিশু পুত্র ছিলেন। আগুন লাগার ঘটনা টের পেয়ে পিতা-পুত্র ঘর থেকে বের হয়ে আসার মাত্র দশ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে বাড়ির দুটি ঘরই সম্পূর্ণরূপে ভস্মিভূত হয়ে যায়। ঘরের সকল আসবাবপত্র, হাঁড়ি পাতিল, লেপ-তোষক, বিছানা ও কাপড়-চোপড় এবং এনজিওর ঋণ পরিশোধের জন্য ঘরে জমানো কিছু টাকাসহ তাদের সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

তারা অভিযোগ করেছেন, পল্লী বিদ্যুত অফিসে ফোন করলেও সাথে সাথে বৈদ্যুতিক লাইন বন্ধ না করায় আগুন নেভাতে প্রতিবেশীরা কেউ এগিয়ে যেতে না পারায় সবার চোখের সামনেই সম্পূর্ণ বাড়িটিই আগুনে পুড়ে যায়।

স্বামী-স্ত্রীর কঠোর পরিশ্রমে গড়ে তোলা ছোট্ট বাড়িটির সাথে তাদের সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়ায় পথে বসেছেন হতদরিদ্র ওই পরিবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *