প্রথম দফায় করোনার গণটিকা পাবে ৪৬ হাজার ভোলাবাসী

সাব্বির আলম বাবু, ভোলা প্রতিনিধি:
ভোলা জেলায় আগামী ৭ আগস্ট থেকে গ্রাম পর্যায়ে করোনা ভাইরাসের গণ টিকাদান কার্যক্রম শুরু। টিকাদান কেন্দ্র গুলোতে জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে গেলেই টিকা নেওয়া যাবে। গণটিকা দানের দিনে জেলায় মোট ৬৮টি ইউনিয়ন ও ৩টি পৌরসভায় প্রথম পর্যায়ে মোট ৪৬ হাজার ২০০ জনকে টিকার আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, আগামী ০৭ আগস্ট থেকে ভোলার ৬৮টি ইউনিয়নে এবং ভোলা, লালমোহন ও চরফ্যাশন পৌরসভায় ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে। প্রতিটি ইউনিয়নে ১টি করে টিকা কেন্দ্রে ৩টি বুথে ৬০০ জনকে টিকার আওতায় আনা হবে।প্রখম পর্যায়ে ৬৮টি ইউনিয়ন ও ৩টি পৌরসভায় (ভোলা, চরফ্যাশন ও লালমোহন) মোট ৪৬ হাজার ২০০ ডোজ টিকা দেয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে ইউনিয়গুলোর ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হলেও পর্যায়ক্রমে প্রতিটি ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের এ ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হবে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সুত্রে জানা আরো যায় প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের মাধ্যমে তালিকা তৈরী করে রেজিস্ট্রেশন শুর করা হবে। এক্ষেত্রে নারী, বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধীরা অগ্রাধীকার পাবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়া টিকা গ্রহণকারীরা টিকা নেওয়ার পর অন্তত ১ঘন্টা কেন্দ্রে অবস্থান অবস্থান করতে হবে বলে তিনি জানান। ৭ আগস্ট সকাল ৯টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত এই টিকা প্রদান কার্যক্রম চলবে। এর পাশাপাশি ভোলা সদর হাসপাতালের টিকা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। গত ৭ ফেব্রুয়ারী ৯২ হাজার ৫০০ ডোজ ভারতের স্ট্রেজেনিকা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তারা পেয়েছেন। এর মধ্যে ৭৩ হাজার ৪৪১ জনকে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেয়া হয়। ভ্যাকসিন সল্পতার কারণে এসময় ১৫ হাজার ৫৫৩ জন দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারেনি।

চলতি মাসের ৪ আগস্ট ১৬ হাজার স্ট্রেজেনিকা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তারা হাতে পেয়েছেন। গণটিকা কার্যক্রমের পরপরই যারা দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে পারেনি তাদেরকে দেওয়া হবে। অপরদিকে ১৯ জুন ১ লক্ষ ০৫ হাজার ৬০০ ডোজ চিনের সিনোফার্মের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ভোলা আসে। ইতি মধ্যে ৩২ হাজার ৬৩৬ জনকে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হয়ে । এখনও ৭২ হাজার ৯৬৪ ডোজ টিকা মজুদ রয়েছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *