ফরিদপুরে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তাগণ ‘শেখ কামাল বেঁচে থাকলে আরো এগিয়ে যেতো দেশ’

মাহবুব হোসেন পিয়াল, ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি:
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে ফরিদপুরে।
এ উপলক্ষে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ কামাল যদি ১৫ আগস্টের নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার না হতেন, তাহলে বাংলাদেশ আজ আরো অনেক এগিয়ে যেতো।

আজ বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকাল ৮ টায় শহরের অম্বিকা ময়দানে স্থাপিত মঞ্চে শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করা হয়। শুরুতেই স্থানীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন, জেলা পরিষদ, সদর উপজেলা প্রশাসনসহ অন্যান্যরা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান (বিপিএম সেবা), জেলা সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শামসুল হক, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক মো. আসলাম মোল্লা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কোতয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুম রেজা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) জামাল পাশা সহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশের কর্মকর্তাবৃন্দ সহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ১০ টার দিকে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অন্যান্যের মধ্যে এতে অংশ নেন সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মোশাররফ আলী, সাংবাদিক প্রফেসর মোঃশাহজাহান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বিষ্ণুপদ ঘোষাল, সরকারি ইয়াছিন কলেজ এর অধ্যক্ষ রানী মন্ডল,আসমা আক্তার মুক্তা প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের সহযোগী অধ্যাপক রেজভী জামান। আলোচকগণ শেখ কামালের জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য দেন।

জেলা প্রশাসক এসময় বলেন, শেখ কামাল একজন দক্ষ সংগঠক ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে তিনি কঠোর পরিশ্রম করেছেন। তিনি বেঁচে থাকলে আজ বাংলাদেশ আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতো।
তিনি বলেন, ভারতের বেলুনিয়া থেকে প্রথম যে কমিশন লাভ করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তার মধ্যে শেখ কামাল ও ছিলেন। শেখ কামাল আরও অনেক গুণে গুণান্বিত ছিলেন। তিনি নাট্যশিল্পের সাথে জড়িত ছিলেন। অনেক বিষয়ে তাঁর জ্ঞান ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *